সোনাগাজীতে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তাকে পিটিয়ে আহত

১০:০৩ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, এপ্রিল ৮, ২০২০ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

আবদুল্লাহ রিয়েল, ফেনী প্রতিনিধি- ফেনীর সোনাগাজীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে হাইকোর্টের রায়কে উপেক্ষা করে এনামুল হক ভূঞা নামে এক অবসরপ্রাপ্ত পুলিশের উপ পরিদর্শককে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে মারাত্মক আহত করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

মঙ্গলবার (০৭ এপ্রিল) দুপুরে সোনাগাজী সরকারি কলেজের দক্ষিণ পাশে পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের চরগণেশ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ৫ জনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন আহত ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

মামলার আসামিরা হচ্ছে, চরগণেশ গ্রামের মৃত ইন্তু খানের ছেলে নূর ইসলাম খান, আলমগীর হোসেন স্বপনের স্ত্রী সাহেদা আক্তার, নাসির উদ্দিন সুজনের স্ত্রী রুবি আক্তার, মৃত মোখলেছুর রহমানের ছেলে ওবায়দুল হক ও তার স্ত্রী কহিনুর আক্তার।

ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার, এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, এনামুল হক ভূঞা ২৫৪২/৯২ দালিলমূলে খরিদকৃত তার মালিকীয় দখলীয় জমিতে মাটি ভরাট করেন। এসময় বিবাদিরা বেআইনী জনতায় দলবদ্ধ হয়ে তার উপর হামলা চালায়। তাকে এলোপাথাড়ি পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে। তার সাথে থাকা ১২ হাজার টাকা মূল্যের একটি মোবাইল ফোন লুটে নেয়।

তিনি দাবি করেন, ৫নং বিবাদি ৪ বার উক্ত জমিতে নিষেধাজ্ঞা করেও মামলা প্রমাণে ব্যর্থ হন। বাদি হাইকোর্টের রিভিশন নং-১৫২৪/০৯ মামলায় রায়ও পান। উক্ত জমি নিয়ে বিবাদিরা একাধিক মামলার রায়ে হেরে যান। এরপরও বিবাদিরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল নয়।

গত ৪ এপ্রিল স্থানীয় আমিন আবুল কালামকে দিয়ে উক্ত জমি পরিমাপ করে সীমানা নির্ধারণের সময় ওবায়দুল হক গং আমিনের জমি পরিমাপের ফিতা ছিড়ে ফেলেন এবং বাদিকে তখনো হত্যার উদ্দেশ্যে আঘাতের চেষ্টা চালায়। বিবাদিরা গায়ের জোরে আইন কানুনের তোয়াক্কা করেনা।

পক্ষান্তরে বাদি একজন সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল লোক। বিবাদিদের দ্বারা সৃজনকৃত একটি জাল দলিল নিয়েও আদালতে একটি মামলা বিচারাধীন রয়েছে।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মঈন উদ্দিন অভিযোগ প্রাপ্তির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।আহত এনামুল হক ভূঞা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে একজন চিকিৎসকের অধীনে বর্তমানে তার বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন।