অবশেষে দিনাজপুরের ‘রুপালী বাংলা’ জুট মিলের কার্যক্রম বন্ধ

২:২২ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ৯, ২০২০ দেশের খবর, রংপুর

শাহ্ আলম শাহী, স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর থেকে- নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী হস্তক্ষেপে অবশেষে বন্ধ হলো দিনাজপুরের বিরলস্থ রুপালী বাংলা জুট মিলের কার্যক্রম।

করোনাভাইরাসের প্রাদূর্ভাবের জটিল পরিস্থিতিতেও সরকারি নির্দেশ অমান্য করে সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখেই বিরল উপজেলায় চলছিল স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা এম আব্দুল লতিফের রুপালী বাংলা জুট মিলের কার্যক্রম।

এ প্রতিবেদক বুধবার দুপুরে সরজমিনে গিয়ে মিল চালু কার্যক্রমের ফুটেজ, কর্মরত শ্রমিক, মিলের স্বত্ত্বাধিকারী এম আব্দুল লতিফের স্বাক্ষাতকার গ্রহণ শেষে এ বিষয়ে জানতে বিরল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিনাত রহমানের সাথে যোগাযোগ করেন।

করোনাভাইরাসের প্রাদূর্ভাবের জটিল পরিস্থিতিতেও সরকারি নির্দেশ অমান্য করে সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখেই রুপালী বাংলা জুট মিলের কার্যক্রম চানুর বিষয়ে তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করে জানান, মন্ত্রী মহোদয় (নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী) নিজেই মিলটি বন্ধের নিদের্শ দিয়েছেন। এনিয়ে বৈঠকও হয়েছে। সকলেই বিষয়টি নিয়ে নিন্দা প্রকাশ করেছেন। কিন্তু, তিনি তারপরও কেনো বন্ধ করছেন না, তা আমার বোধগম্য নয়।

পরে এ প্রতিবেদক এ বিষয় নিয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী’র সাথে মুঠোফোনে কথা বলেন। মিলটি এখনও চলছে, জেনে তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেন। বলেন, রুপালী বাংলা জুট মিলের কার্যক্রম এখনও চালু আছে, তা তিনি বিশ্বাস করতে পারছেন না।

কিছুক্ষণ পর রুপালী বাংলা জুট মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম আব্দুল লতিফ নিজে মুঠোফেনে এ প্রতিবেদককে জানান, মিল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে,আপনি একটু মন্ত্রী সাহেবকে জানান। বিকেল ৫টার মধ্যে সব ক্লোজ করে নেয়া হবে। শ্রমিকদের ছুঁটি দেয়া হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী হস্তক্ষেপে বুধবার সন্ধায় রুপালী বাংলা জুট মিলের কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে মিল কর্তৃপক্ষ।

উল্লেখ্য, রুপালী বাংলা জুট মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম আব্দুল লতিফ বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক। গত ২৬ মার্চ রুপালী বাংলা জুট মিলে বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকদের আন্দোলনের ঘটনায় শ্রমিক-পুলিশের সংর্ঘষে পুলিশের গুলিতে এক চা দোকানদার নিহত হয়। এ ঘটনায় ৩ পুলিশসহ আহত হয় আরো ১৩ শ্রমিক।