এবার সাভারের রাস্তায় মাকে ফেলে পালালেন সন্তানরা!

৪:০১ অপরাহ্ণ | রবিবার, এপ্রিল ১৯, ২০২০ স্পট লাইট

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক:প্রাণঘাতী করোনা আক্রান্ত সন্দেহে এবার সাভারে এক বৃদ্ধা মাকে ফেলে পালিয়েছে তার পষন্ড সন্তানেরা। ওই নারীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল শনিবার রাতে অসহায় ওই নারীকে উপজেলার হেমায়েতপুর জয়নাবাড়ী এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়।

পরে বিষয়টি স্থানীয়রা উপজেলা প্রশাসনকে জানালে পরে ওই নারীকে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট সাভার উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সেখানেই তিনি চিকিৎসাধীন।

স্থানীয়রা জানান, শনিবার রাতে ওই নারীকে দেখেই তাদের সন্দেহ হয়। কেউ তার কাছে ভিড়ছিলেন না। মনে হচ্ছিল, না খেতে পেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

এর আগে এলাকাটিতে বেশ কয়েকজন করোনা রোগী পাওয়া গেছে। ফলে ওই নারীকে তার সন্তানরা ফেলে রেখে পালিয়েছে। ঝামেলা হওয়ার ভয়ে ওই নারী সন্তানদের ঠিকানা বলছেন না। কার বাসায় ছিলেন, তাও জানা যাচ্ছে না।

এ ব্যাপারে সাভারের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবদুল্লাহ আল মাহফুজ যুগান্তরকে বলেন, ওই নারী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন কিনা তা পরীক্ষা করার জন্য নমুনা ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, পরীক্ষায় ওই নারীর যদি করোনা পজিটিভ হয়, তা হলে তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে। আর যদি নেগেটিভ হয় তা হলে তাকে কোনো আশ্রয়কেন্দ্রে রাখা হবে।

প্রসঙ্গত মহামারী পরিস্থিতির মধ্যে দেশের বিভিন্ন জায়গায় করোনা সন্দেহে বৃদ্ধ বাবা-মাকে ঘর থেকে বের করে দেয়ার খবর আসছে।

গত ১৩ এপ্রিল করোনা সন্দেহে টাঙ্গাইলের সখীপুরের বনে এক নারীকে ফেলে যায় তার সন্তানরা। পরে রাত ৮টার দিকে বনের ভেতর থেকে তার কান্নার শব্দ শুনে স্থানীয়রা ওই নারীকে উদ্ধার করেন।

আগের দিন ১২ এপ্রিল সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার হবিবপুরে ঢাকাফেরত শ্রমিকের বাড়িতে যাওয়ার অভিযোগে এক বৃদ্ধাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয় তার সন্তানরা। এ ছাড়া চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলায় জ্বর, কাশি থাকায় নিজ ভিটা ও একমাত্র সন্তানের বাড়িতে ঠাঁই হয়নি মজিবুর রহমান নামে ৬০ বছরের এক বৃদ্ধের।

পরে শনিবার বেলা ২টায় মুক্তিরকান্দি গ্রামের লোকজন তাকে স্থানীয় হাজীমার্কেটের পাশের একটি ঈদগাহ মাঠে রেখে আসেন। বর্তমানে তিনি চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় উক্ত এলাকার সকলে ওই বৃদ্ধার সন্তানদের খুজে বের করার চেষ্টা করছে।