মাধবপুরে অবৈধ বালু উত্তোলন, ধসে পড়ছে ফসলি জমি

১২:৫২ অপরাহ্ন | শুক্রবার, মে ১৫, ২০২০ সিলেট
joi

মঈনুল হাসান রতন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার বুল্লা ইউনিয়নের বানেশ্বর এলাকার কৃষি জমি থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে মাটি ও বালু উত্তোলন করার ফলে সফলি জমি নষ্ট করার ঘটনায় থানায় অভিযোগ হয়েছে।

বানেশ্বর গ্রামের হাজী আশরাফ আলীর ছেলে হাফেজ মোবারক তাদের পারিবাকি জমি ক্ষতির অভিযোগ এনে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় মঙ্গলবার দুপুরে মাধবপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জহিরুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, বানেশ্বর গ্রামের উসমান মিয়র ছেলে লুৎফুর রহমান ও অলিউর রহমান সহ কয়েকজন মিলে ২০১৯ সালের ১২ সেপ্টেম্বর হাফেজ মোবারক মিয়ার জমির দক্ষিন পশ্চিম দিকে ২ টি ড্রেজার মেশিন দিয়ে মাটি কেটে গর্ত সৃষ্টি করে। এতে হাফেজ মোবারক মিয়ার জমির বেশ কিছু অংশ ভেঙ্গে গর্তে পরে যায়।

এ ঘটনায় হাফেজ মোবারক উপজেলা নিবার্হী কর্মকতার নিকট একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মাটি কাটা বন্ধ রাখতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। সম্প্রতি তারা আবার মাটি ও বালু উত্তোলন করার চেষ্টা করলে গত ৬ এপ্রিল হাফেজ মোবারক উপজেলা নিবার্হী কর্মকতার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ৫ মে সহকারী কমিশনার (ভুমি) ঘটনাস্থল সরজমিন পরিদর্শন করে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু ও মাটি উত্তোলন বন্ধ করতে নিষেধ করেন এবং পাইপ ধ্বংস করেন।গত ৬ মে লুৎফুর রহমানের লোকজন গভীর নলকূপ চালু করে। এতে হাফেজ মোবারকের ধানি জমি বেশ কিছু অংশ ভেঙ্গে যায়। গত ৭ মে হাফেজ মোবারকের পিতা জমির পাশে গিয়ে এ অবস্থা থেকে প্রতিবাদ করলে লুৎফুর রহমান ও অলিউর রহমান হাজী আশরাফ আলীর উপর হামলা করে আহত করে। এ ঘটনায় হাফেজ মোবারক বাদি হয়ে লুৎফুর রহমান সহ ৮ জনের নাম উল্লেখ করে মাধবপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে মাধবপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জহিরুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত লুৎফুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, মোবারক মিয়ার অভিযোগ মিথ্যা।

এ ব্যাপারে এসআই জহিরুল ইসলাম জানান, ঘটনাটি ও জমিটি সরজমিন গিয়ে দেখা হয়েছে। উধ্বর্তন কতৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।