দিনাজপুরে লাচ্ছা সেমাই তৈরির ধুম

১১:০৯ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, মে ১৫, ২০২০ রংপুর
eid

শাহ্ আলম শাহী, স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর থেকেঃ করোনা পরিস্থিতিতেও পবিত্র ঈদ উল ফিতরকে সামনে রেখে মানুষের চাহিদা পুরণে দিনাজপুরে লাচ্ছা সেমাই তৈরির ধুম পড়েছে। অন্যান্য জেলাগুলোতে বেশকিছু বেকারি ও মৌসুমি কারখানায় বিষাক্ত তেল ও রং ছাড়াও মানব দেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর বিভিন্ন উপাদান দিয়ে লাচ্ছা সেমাই হলেও দিনাজপুরে তা ব্যতিক্রম।

দিনাজপুরে বেকারি মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ নিয়মিত তদারকি এবং জেলা প্রশাসন প্রতিনিয়ত লাচ্ছা সেমাই তৈরীর কারখানাগুলোতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। ফলে এবার এসব কারখানায় স্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি হচ্ছে লাচ্ছা সেমাই।

বাইরের কিছু দামি-দামি বেকারি এবং মৌসুমি কিছু কারখানা থেকে আসা আকর্ষনীয় মোড়কে মোড়ানো, দেখতে সুন্দর এসব লাচ্ছা দেখে বোঝার উপায় নেই, এসব ব্যবহার হয় বিষাক্ত তেল ও রং ছাড়াও মানব দেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর বিভিন্ন উপাদান। এসব লাচ্ছা সেমাই তৈরির কারখানাগুলোতে লাচ্ছা উৎপাদনের নামে চলে, জনস্বাস্থ্য ধবংসের এমন তৎপরতা।

সরজমিনে দেখা গেছে, এবার লাচ্ছা তৈরী’র ময়দা খামিরের কাজ মেশিনে করছে শ্রমিকরা। সুষ্ঠু ও স্বাস্থ্যকর পরিবেশে চলছে লাচ্ছা তৈরী ও ভাজার কাজ।
অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে লাচ্ছা তৈরি করা হলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছে জেলা বেকারী মালিক সমিতির সভাপতি মো. সাইফুল্লাহ এবং সাধারণ সম্পাদক শামীম শেখ। করোনা’র মধ্যেও ঈদ উল ফিতরকে সামনে রেখে মানুষের চাহিদা পুরণে তাদের মান সম্পন্ন লাচ্ছা তৈরীর প্রচেষ্টা চলছে বলে জানান বেকারি মালিক সমিতির কোষাধ্যক্ষ রবি।

এরপরও স্থানীয় প্রশাসন প্রতিনিয়ত লাচ্ছা সেমাই তৈরীর কারখানাগুলোতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। দিনাজপুর জেলা বেকারি মালিক সমিতির আওতাভুক্ত নয় এমন কিছু মৌসুমি লাচ্ছা সেমাই তৈরির কারখানায় অভিযান চালিয়ে জরিমানাও করেছেন প্রশাসন। মানব দেহের জন্য ক্ষতিকর উপাদান মেশানো বা অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে লাচ্ছা তৈরি করা হলে কঠোর অবস্থানের কথা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম। তিনি জানান, স্বাস্থ্যসম্মত ও মান সম্পন্ন লাচ্ছা সেমাই তৈরি’র জন্য আমরা মাঠ পর্যায়ে তদারকি ও অভিযান অব্যাহত রেখেছি।