কাউন্টার টেররিজমের সতর্কবার্তায় নিজের ভুল শুধরে ক্ষমা চাইলেন ‘বিতর্কিত’ নোবেলম্যান

১২:২০ অপরাহ্ণ | সোমবার, মে ২৫, ২০২০ বিনোদন
কাউন্টার টেররিজম

বিনোদন ডেস্ক, সময়ের কণ্ঠস্বর-  সারেগামাপা-২০১৯’ এর দ্বিতীয় রানার্সআপ মাঈনুল আহসান নোবেল। ভারতে গতবছর একটি বিখ্যাত রিয়ালিটি শোতে সেকেন্ড রানার্স আপ হয়ে তিনি হইচই ফেলে দিয়েছিলেন ৷  ফেসবুক পেজ নোবেলম্যান এর ফলোয়ার কয়েক লক্ষ ৷ গত কয়েকদিন থেকে ফেসবুকে একের পর এক বিতর্কিত পোস্ট করে তর্কে জড়িয়ে পড়েন তিনি।

সিনিয়র শিল্পীদের হেয় করে মন্তব্য করার পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়ায় আক্রমণ করে বসেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ৷

সম্প্রতি তাঁর একটি পোস্টে নোবেল বলেন, ‘আমাকে নিয়ে বিতর্ক হবেনা তো কি ওই চা ওয়ালা মোদীকে নিয়ে হবে? এরপরই কিছু অশালীন বাক্যবন্ধ ব্যবহার করেন নোবেল ৷ ভারতের নেটিজনদের মধ্যেও এই নিয়ে ক্ষোভের ঝড় ওঠে ৷’

তাহসিন এন রাকিব নামের একজন ইউটিবার ও সঙ্গীতশিল্পীর সঙ্গে ক্রমাগত বাক্যযুদ্ধে লিপ্ত হন। যেখানে অশালীন শব্দেরও প্রয়োগ ঘটে। বিগত কয়েক দিন যাবত মাইনুল আহসান নোবেলের অফিসিয়াল ফেসবুক ফ্যান পেজ থেকে নানা বিতর্কিত মন্তব্য করা হয়েছে। সিনিয়র শিল্পীদের হেয় করে মন্তব্য করেছেন। আবার ভিডিওতে এসে বলেছেন তার পেজ হ্যাকড হয়নি। তিনি নিজেই এটি করেছেন।

তবে নিজের একের পর এক  এমন ‘বিতর্কিত আচরণের’ জন্য  এবার ক্ষমা চাইলেন নোবেল।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এসব আলোচনা সমালোচনার পর নোবেলের এসব কর্মকান্ডে সজাগ দৃষ্টি রাখেন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট।

সংশ্লিষ্ট বিভাগের এডিসি নাজমুল ইসলাম নিজের ব্যক্তিগত  ভেরিফাইড ফেসবুক প্রোফাইলে একটি পোস্ট করেন। তিনি ওই পোস্টে লেখেন,

‘নোবেলম্যান! আপনার পেজের অনেক পোস্ট দেখলাম। দেশের মানুষ আপনাকে ভালোবাসে, আপনার কাছ থেকে অনেকেই অনেকভাবে শেখে। আমি একজন সাইবার কপ হিসেবে আশা করি যে, আপনি আপনার পোস্টের মাধ্যমে সাইবার নীতি মেনে এ দেশের একজন সম্মানিত ব্যক্তি ও গুণীজন হিসেবে সাইবার রিজিলিয়েন্ট সমাজ বিনির্মাণে প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখবেন। আপনি ভাল থাকুন!’

এডিসি নাজমুলের এই পোস্টেই নোবেলের টনক নড়ে। নোবেল ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা চেয়ে একটি পোস্ট করেন। ওই পোস্টে নোবেল লেখেন, ‌‘আমি অত্যন্ত দুঃখিত নাজমুল স্যার। আমি কাউকে আপত্তি করে পোস্ট করেনি। মূলত আমার নতুন গান ‘তামাশা’ মুক্তি উপলক্ষে দর্শকের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য এই পোস্ট দিয়েছি। তবে আমি দুঃখিত। আমি ক্ষমা প্রার্থনা করছি।’

এরপর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের এডিসি নাজমুল ইসলাম নিজের ব্যক্তিগত প্রোফাইলে একটি পোষ্টে লিখেন,

‘সম্মানিত নেটিজেনস্, ঈদ মোবারক। মি: নোবেলম্যানকে নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে, আর বোধহয় দরকার নেই। উনি আমাদের দেশের একজন প্রখ্যাত কন্ঠশিল্পী; যিনি কি-না আমাদের প্রতিবেশী দেশেও ব্যাপক জনপ্রিয়। নোবেলম্যান তার নিজস্ব ফেসবুক পেইজ Noble Man এ সম্প্রতি যা বলেছেন তা ওনার আসন্ন নতুন গান ‘তামাশা’ কে প্রমোট করার জন্য। কাউকে কষ্ট দেওয়াটা ওনার উদ্দেশ্য ছিল না। তারপরও যদি কেউ কষ্ট পেয়ে থাকেন তাহলে উনি আন্তরিকভাবে দু:খ প্রকাশ করেছেন। এটিই ওনার বক্তব্য।

আমরা র‍্যাব ২ এর পক্ষ থেকে উনাকে ডেকেছি এবং উনি স্বেচ্ছায় আমাদের কাছে এসে ওনার উপরোক্ত বক্তব্যটি পেশ করেছেন। আসুন আগের মতোই আমরা নোবেলের গানে মাতোয়ারা হয়ে যাই।’

ওই পোস্ট শেয়ার করে নোবেল লিখেছেন, আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে RAB 2 এর Monir Zaman ভাইয়ের কাছে নিম্নলিখিত বক্তব্য পেশ করেছি। সকলকে ঈদের অগ্রিম শুভেচ্ছা এবং ‘তামাশা’ গানটি শোনার আমন্ত্রণ।

উল্লেখ্য, গতকদিন আগে নোবেল তার ব্যাক্তিগত ফেসবুক একাউন্টে লিখেন, ‘দু-বছর আগে জন্ম নিয়েছি আপনাদের ভালোবাসা নিয়ে। দু-বছরে ফ্লপ/হিট গানের সংখ্যা দুই। তোমার মনের ভেতর – অনুপম রায় (National Award winner)। আগুনপাখি – শান্তনু মৈত্র (National Award winner)। তোমাদের লেজেন্ড গত দশ বছর ধরে কয়টা ফ্লপ অথবা হিট রিলিজ করেছে কমেন্টস্ সেকশানে জানাও। থুক্কু বাংলাদেশে তো গত ১০ বছরে ভালো করে কেউ মিউজিকই করেনি। দাঁড়াও তোমার লেজেন্ডদের না হয় আমিই শিখাবো, কিভাবে ২০২০ সালে মিউজিক করতে হয়।’

এই স্ট্যাটাসের পর থেকেই নোবেলের উপরে ক্ষোভে ভেঙে পড়েন সঙ্গীতপ্রেমী শ্রোতারা।