• আজ ২৮শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

করোনা-আম্পানের মধ্যেই ভারতে পঙ্গপালের আক্রমণ

৯:০৪ অপরাহ্ণ | সোমবার, মে ২৫, ২০২০ আন্তর্জাতিক
ind

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ করোনায় অর্থনৈতিক ক্ষতি কাটতে না কাটতেই ঘূর্নিঝড়, তার ওপর পঙ্গপালের হানায় ভয়াবহ হুমকিতে পড়েছে ভারতের খাদ্য নিরাপত্তা। এ মাসের শুরুতে রাজস্থানে প্রবেশের পর এখন মধ্যপ্রদেশ ও উত্তর প্রদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে পঙ্গপালের কয়েকটি ঝাঁক। এদের একটি দল দিল্লীর দিকে যাচ্ছে বলেও অনুমান করা হচ্ছে।

বর্তমানে ডৌসা জেলামুখী হয়েছে এই ফসলবিনাসী পতঙ্গেরা। কর্মকর্তারা বলেন, তারা আরও সামনের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। সাবার করার জন্য কোনো ফসল না থাকায় তারা গাছগাছালির ক্ষতি করছে। জয়পুরের মরুলিপুরা ও বিদ্যাধরনগর এলাকায় লোকজন থালি পিটিয়ে পঙ্গপাল তাড়ানোর চেষ্টা করছেন।

রাজ্য কৃষি বিভাগের কমিশনার ওম প্রকাশ বলেন, রাজস্থানের ১৮টি জেলায় এই বিপদ ছড়িয়ে পড়েছে। খাবারের খোঁজে তারা দ্রুত অগ্রসর হচ্ছে। এই পঙ্গপালের ঝাঁক নাগোরে ছিল। কিন্তু রোববার তা জয়পুরে পৌঁছে আশপাশের এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। তিনি বলেন, ক্ষেতে কোনো ফসল না থাকায় তারা বড় বড় গাছের ওপর বসে পড়ে। তারা দ্রুত সামনের দিকে যাচ্ছে।

ফসল বাঁচাতে কোথাও রাসায়নিক স্প্রে কোথাও বা ধাতব শব্দ করে পঙ্গপালের হাত থেকে রেহাই পেতে চেষ্টা করছে চাষিরা। রাজস্থান থেকে ড্রোন চাওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে।

ঝাঁসি জেলার কৃষি বিভাগের উপ-পরিচালক কামাল কাটিয়ার বলেন, এগিয়ে আসা পঙ্গপালের ঝাঁকটি আকারে ছোট। আমরা খবর পেয়েছি, দেশে আড়াই থেকে ৩ কিলোমিটার দীর্ঘ পঙ্গপালের ঝাঁক ঢুকে পড়েছে। পঙ্গপাল মোকাবিলায় সহায়তা করতে রাজস্থানের কোটা থেকে একটি বিশেষজ্ঞ দল আসছে। বর্তমানে পঙ্গপালের ঝাঁকটি ঝাঁসির বাঙ্গরা মগরপুরে অবস্থান করছে।

তিনি বলেন, রাতে পঙ্গপালের ঝাঁকে কীটনাশক স্প্রে করা হবে। তবে কোন দেশ থেকে এই পঙ্গপালের ঝাঁক ভারতে প্রবেশ করেছে সে ব্যাপারে কোনও তথ্য দেননি এই কর্মকর্তা।

এর আগে ২০১৯ সালে রাজস্থানের ১২ জেলায় পঙ্গপাল হানা দিয়ে ৬ লাখ ৭০ হাজার হেক্টর জমির ফসল নষ্ট করে। ওই বছর ১ হাজার কোটি রুপির আর্থিক ক্ষতি হয়। এবার পরিস্থিতি মোকাবেলায় রাজ্যের কৃষিবিভাগ ৪৫ টি পিকআপ, ৭০ টি যান দিয়ে পরিস্থিতি মনিটরিং করছে এবং ৬০০ ট্রাক্টর দিয়ে আক্রান্ত এলাকাগুলোতে কীটনাশক ছিটাচ্ছে।