ভারতে ৪ হাজার ১৬৭ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত প্রায় দেড় লাখ

৪:৩০ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, মে ২৬, ২০২০ আন্তর্জাতিক
ind

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ পরীক্ষার সংখ্যা বাড়ানোর পর ভারতে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্তের সংখ্যা। সোমবারই দেশটি সংক্রমণের নিরিখে ইরানকে ছাপিয়ে বিশ্বের প্রথম দশে ঢুকে পড়ে।

ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে ছয় হাজার ৫৩৫ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে আক্রান্ত বেড়ে এক লাখ ৪৫ হাজার ৩৮০ জনে দাঁড়িয়েছে। একইসঙ্গে গত একদিনে মৃত্যু হয়েছে ১৪৬ জনের। এ নিয়ে দেশে করোনায় প্রাণহানি চার হাজার ১৬৭ জনে ঠেকেছে।

এছাড়া মোট করোনা সংক্রমিত থেকে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা ৮০ হাজার ৭২২ জন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৬০ হাজার ৪৯০ জন।

রাজ্য ভেদে ভারতের মহারাষ্ট্রেই মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৬৯৫ জনের। ৮৮৮ জন মারা গিয়েছেন গুজরাটে। এছাড়া মধ্যপ্রদেশে ৩০০, পশ্চিমবঙ্গে ২৭৮, দিল্লিতে ২৭৬, রাজস্থানে ১৬৭, উত্তরপ্রদেশে ১৬৫ ও তামিলনাড়ুতে ১১৮ জনের প্রাণ নিয়েছে কোভিড-১৯।

ভারতে প্রথম করোনা সংক্রমণের সন্ধান মিলেছিল কেরলে। তার কয়েক দিনের মধ্যেই আক্রান্তের সংখ্যায় শীর্ষে উঠে এসেছিল মহারাষ্ট্র। যা এখনও অব্যাহত রয়েছে। যেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৫২ হাজার ৬৬৭ জনে পৌঁছেছে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন দু’হাজার ৪৩৬ জন।

আক্রান্তের সংখ্যায় দ্বিতীয় স্থানে তামিলনাড়ু। এ রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ১৭ হাজার ৮২ জন। এরপরই গুজরাট। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ হাজার ৪৬০ জন। রাজধানী দিল্লিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ হাজার ৫৩ জন।

এরপর ক্রমান্বয়ে রয়েছে রাজস্থান (৭ হাজার ৩০০), মধ্যপ্রদেশ (৬ হাজার ৮৫৯), উত্তরপ্রদেশ (৬ হাজার ৫৩২), পশ্চিমবঙ্গ (৩ হাজার ৮১৬), অন্ধ্রপ্রদেশ (৩ হাজার ১১০), বিহার (২ হাজার ৭৩০), কর্নাটক (২ হাজার ১৮২), পঞ্জাব (২ হাজার ৬০), তেলঙ্গানা (১ হাজার ৯২০), জম্মু-কাশ্মীর (১ হাজার ৬৬৮), ওড়িশা (১ হাজার ৪৩৮) ও হরিয়ানা (১ হাজার ১৮৪)।

পশ্চিমবঙ্গে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ হাজার ৮১৬ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত হয়েছে ১৪৯ জন। প্রাণ গেছে এখন পর্যন্ত ২৭৮ জনের। যদিও রাজ্য সরকারের হিসেবে, করোনা ২০৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। বাকি ৭২ জনের কোমর্বিডিটির কারণে মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫৬ লাখ ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৪৮ হাজারের বেশি মানুষের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২৩ লাখের বেশি মানুষ।

উল্লেখ্য গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে সর্ব প্রথম এই ভাইরাসের আবির্ভাব ঘটে। এর পর একে একে বিশ্বের ১৮৫ টির বেশি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। তবে আশার খবর বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা কমছে।