নড়াইলে হাত-পায়ের রগ কেটে আওয়ামী লীগ নেতাকে হত্যা

৮:২৭ অপরাহ্ণ | বুধবার, মে ২৭, ২০২০ খুলনা, দেশের খবর

জেলা প্রতিনিধি, নড়াইল- নড়াইলের নড়াগাতী থানার কলাবাড়িয়া ইউনিয়নে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের চলমান সংঘর্ষের জেরে প্রতিপক্ষের হাতে খুন হয়েছেন কলাবাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য কাইয়ুম সিকদার। এ সময় তার সঙ্গে থাকা নড়াগতি থানা কৃষক লীগের সভাপতি হাসনাত মোল্যার হাত ও পায়ের রগ কেটে দিয়েছে দূর্বত্তরা।

এলাকাবাসী জানায়, মঙ্গলবার (২৬মে) রাতে কালিয়া উপজেলা থেকে মোটর সাইকেলে কলাবাড়িয়া ফেরার পথে রাত ৯টার দিকে কালিনগরের বোয়ালিয়ার চর মন্দিরের কাছে পৌছালে ওত পেতে থাকা দূর্বত্তরা এলোপাতাড়ি কুপিয়ে কাইয়ুম সিকদারের হাত ও পা বিচ্ছিন্ন করে ফেলে এবং হাসনাত মোল্যার হাত ও পায়ের রগ কর্তন করে। হাসপাতালে নেওয়ার পথে কাইয়ুম সিকদার মারা যান।

এদিকে মারাত্নক আহত আবুল হাসনাত মোল্যাকে খুলনা মেডিকেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশের ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, স্থানীয় প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে গ্রামটিতে কলাবাড়িয়া ইউপির আওয়ামী লীগ মনোনিত চেয়ারম্যান মাহামুদুল হাসান কায়েস সমর্থিত মুরসালিন মোল্যা গ্রপ ও কালিয়া উপজেলার নড়াগাতি থানা কৃষক লীগের সভাপতি হাসনাত মোল্যা গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে।

ঈদের আগে শনিবার (২৩ মে) সন্ধ্যায় মুরসালিন গ্রুপের লোকজন হাসনাতের চাচাতো ভাই বিলায়েত মোল্যা (৪০) ও তকির মোল্যাকে (৩৫) পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। প্রায় দুই ঘন্টা ব্যাপি দফায় দফায় চলা সংঘর্ষে মহিলাসহ উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হন। এছাড়া সংঘর্ষ চলাকালে প্রতিপক্ষের লোকজন হামলা চালিয়ে অন্তত ২৫টি বাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাট হয় বলে এলাকাবাসী জানায়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নড়াগাতী থানার ওসি রোখসানা খানম বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে, অপরাধীদের ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।