দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ হাজার ছাড়াল

৩:২০ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, মে ২৮, ২০২০ জাতীয়
nasima

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ বাংলাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৫ জন। এনিয়ে মোট মারা গেলেন ৫৫৯ জন। এছাড়া একই সময়ে আরও ২,০২৯ জন করোনাভাইরাসে সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৪০,৩২১।

বৃহস্পতিবার (২৮ মে) বেলা আড়াইটায় কোভিড-১৯ সম্পর্কিত সার্বিক পরিস্থিতি জানাতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনের আয়োজন করা হয়। সেখানে এসব তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।

নাসিমা সুলতানা জানান, ৪৯টি ল্যাবের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৯ হাজার ২৬৭টি। পরীক্ষা করা হয়েছে ৯ হাজার ৩১০টি। এ পর্যন্ত মোট পরীক্ষা করা হয়েছে দুই লাখ ৭৫ হাজার ৭৭৬ টি। ঢাকায় ২৫ টি এবং ঢাকার বাইরে ২৪টি ল্যাবে এ পরীক্ষা করা হয়েছে। নতুন করে পরীক্ষায় যুক্ত হয়েছে সিরাজগঞ্জের শহীদ এম মনসুর আলী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল।

গত ২৪ ঘণ্টা শনাক্ত হয়েছেন ২ হাজার ২৯ জন। সবমিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪০ হাজার ৩২১ জন। শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৭৯ শতাংশ। এছাড়া ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা সিটিসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে সুস্থ হয়েছেন ৫শ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ৮ হাজার ৪২৫ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ২০ দশমিক ৮৯ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণ করেছেন ১৫ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৫৫৯ জনের। শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩৯ শতাংশ।

তিনি বলেন, মৃত্যুর বিশ্লেষণে পুরুষ ১১ জন এবং নারী চারজন। বিভাগ বিশ্লেষণে ঢাকায় সাতজন এবং চট্টগ্রাম বিভাগে আটজন। বয়স বিশ্লেষণে ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুইজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে পাঁচজন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে পাঁচজন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে দুইজন, ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে একজন। মোট ১৫ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

গত কিছুদিন ধরে দেশে প্রায় প্রতিদিনই দেড় সহস্রাধিক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হলেও সাধারণ ছুটি আর না বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। বৃহস্পতিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনও জারি করেছে। ৩১ তারিখ থেকে সরকারি সব অফিস-আদালত খুলে দিলেও গণপরিবহন চলাচল সীমিত রাখারই সিদ্ধান্ত হয়েছে। এছাড়া অফিস করার ক্ষেত্রেও স্বাস্থ্যবিধিগুলো মেনে চলার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে বিশ্বে ৫৮ লাখ ৩ হাজার ৯৯ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ৩ লাখ ৫৭ হাজার ৬৯১ জন মারা গেছেন অন্যদিকে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ২৫ লাখ ৮ হাজার ৫৯১ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন ২৯ লাখ ৩৬ হাজার ৮১৭ জনের মধ্যে ৫২ হাজার ৯৭০ জনের অবস্থা গুরুতর।