ঠাকুরগাঁওয়ে করোনা উপসর্গ নিয়ে ১ জনের মৃত্যু, একদিনে শনাক্ত ১৭

১১:৪২ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, মে ২৯, ২০২০ রংপুর
thak

কামরুল হাসান, ঠাকুরগাঁও প্রপিনিধিঃ ঠাকুরগাঁওয়ে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে গত কয়েক দিনের চেয়ে সর্বোচ্চ ১৭ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৮৪ জনে।

বুধবার (২৮ মে) রাতে সিভিল সার্জন ডা. মো.মাহফুজার রহমান সরকার জানান, দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হতে প্রাপ্ত সর্বশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী ঠাকুরগাঁও জেলায় নতুন করে ১৭ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে সদর উপজেলায় ২, পীরগঞ্জে ৩, হরিপুরে ২, রানীশংকৈলে ১ এবং বালিয়াডাঙ্গীতে ৯ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।

জানা গেছে, সদর উপজেলায় আক্রান্ত দুইজনই পুরুষের বাড়ী আখানগর ইউনিয়নের কালিবাড়ী মহেষপুর এলাকায়। তারা যথাক্রমে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ থেকে সম্প্রতি ঠাকুরগাঁওয়ে এসেছেন। পীরগঞ্জ উপজেলায় আক্রান্ত হয়েছেন একজন নারী ও দুইজন পুরুষ। তাদের বাসা উপজেলার কোষারাণীগঞ্জ ও জাবরহাট এলাকায়। হরিপুরে আক্রান্ত দুইজন পুরুষ। তাদের বাসা উপজেলার কাঠালডাঙ্গী নামক এলাকায়। রাণীশংকৈল উপজেলায় আক্রান্ত হয়েছেন ২২ বছর বয়সী এক যুবক। তার বাসা উপজেলা বাঁশবাড়ী এলাকায়।

এছাড়া জেলার সর্বোচ্চ সংখ্যক ৩ জন নারী ও ৬ জন পুরুষসহ ৯ জন করােনায় আক্রান্ত হয়েছেন বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায়। তাদের দুইজনের বাসা উপজেলার ছােট লাহিড়ী এলাকায়, একজনের আমজানখােড় ইউনিয়নে এবং ৬ জনের বাসা বড় পলাশবাড়ী ইউনিয়নে। তারা সকলেই ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ ফেরত। উপজেলায় ৭ জন ও পীরগঞ্জে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ জন। পূর্বের রিপোর্টসহ ঠাকুরগাঁও জেলায় সর্বমোট করোনা সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা ৮৪ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৩ জন।

রাতে আখানগর ইউনিয়নের কালীবাড়ি মহেশপুর গ্রামের করোনা আক্রান্তদের বাড়ীসহ ৪টি বাড়ি লক ডাউন ঘোষণা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ-আল-মামুন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন রুহিয়া থানার সাব ইন্সপেক্টর ও সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য। এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্থানীয় জনসাধারণকে সর্তক থাকার নির্দেশনা প্রদান করেন।

অন্যদিকে এই প্রথম করোনা উপসর্গ নিয়ে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে আব্দুল জলিল (২৩) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৮ মে) হাসপাতালটির আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার রাকিবুল আলম জানান, রাত আড়াইটায় শ্বাস কষ্ট নিয়ে সে হাসপাতালে ভর্তি হয় এবং আজ তিনি মারা যায়। গত তিন দিন ধরে সে জ্বর ও শ্বাস কষ্টে ভুগছিল বলে তার পরিবার জানায়। তার বাড়ি বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ভানোরে। তার করোনা হয়েছিল কিনা তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হতে ৫ দিনের মধ্যে রিপোর্ট পাওয়া যাবে বলে আশা করছি।

উল্লেখ্য, ঠাকুরগাঁও জেলায় করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮৪ জন। এর মধ্যে ২৩ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এখন পর্যন্ত জেলায় ১৪৫০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।