ভারতীয় ভূখণ্ডের ৪২৩ মিটার দখলে নিল চীন

১২:৩১ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুন ৩০, ২০২০ আন্তর্জাতিক
chai

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ লাদাখের গালওয়ান উপত্যকার সীমানা পেরিয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডের ৪২৩ মিটার পর্যন্ত এলাকায় প্রবেশ করেছে চীন। ১৯৬০ সালে চীন ভারতীয় অংশের যে পরিমাণ ভূমি দাবি করেছিল, এখন তার চেয়েও বেশি ভূমি দখলে নিতে সক্ষম হয়েছে তারা।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় অংশে রয়েছে চীনা বাহিনীর ১৬ টি তাঁবু, একটি বড় আশ্রয়কেন্দ্রে ও অন্তত ১৪ টি গাড়ি। ২৫ জুনের সংঘর্ষস্থল পেট্রলিং পয়েন্ট ১৪-র অদূরে এই ‘তৎপরতা’ চীন সেনার!

প্রতিবেদনে বলা হয়, সংঘর্ষের ১০ দিন পর গত ২৫ জুন তোলা উপগ্রহ চিত্রে দেখা গেছে, ভারতের অভ্যন্তরে ৪২৩ মিটার ঢুকে গেছে চীন। ১৯৬০ সালে ‘রিপোর্ট অব দ্য অফিসিয়্যালস অব দ্য গভর্নমেন্টস অব ইন্ডিয়া এন্ড দ্য পিপল’স রিপাবলিক অব চায়না অন দ্য বাউন্ডারি কোশ্চেন’ এ বেইজিং এর পক্ষ থেকে যে পরিমাণ ভূখণ্ড দাবি করার কথা জানা গেছে, তার চেয়ে এর পরিমাণ বেশি।

২৫ জুনের উপগ্রহ চিত্র তুলে ধরে সোমবার প্রকাশিত খবর জানাচ্ছে, পিছনো দূরের কথা, গালওয়ান উপত্যকায় পিপলস লিবারেশন আর্মির উপস্থিতি ক্রমশই জোরদার হচ্ছে। এই আবহেই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় উত্তেজনা কমাতে মঙ্গলবার ফের দুই সেনার কোর কমান্ডার স্তরের বৈঠক হওয়ার কথা।

গালওয়ান উপত্যকা-সহ লাদাখের বিভিন্ন পাহাড়ি এলাকায় এলএসি’র ‘অবস্থান’ নিয়ে দু’পক্ষের মতবিরোধ রয়েছে। কিন্তু ১৯৬০ সালে মাও জে দংয়ের সরকার গালওয়ানে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার যে অবস্থান চিহ্নিত করেছিল এবার তাকেও লঙ্ঘন করেছে শি চিনফিংয়ের লালফৌজ!

এদিকে রবিবার ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানে জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি চীনের নাম উল্লেখ না করে বলেন, “লাদাখে ভারতের দিকে যারা খারাপ নজর দিয়েছে, তাদের আমরা উপযুক্ত জবাব দিয়েছি। ভারত বন্ধুত্বের মর্যাদা রাখতে জানে। কিন্তু শত্রুকেও উপযুক্ত জবাব দিতে পারে।”

উল্লেখ্য এক মাসেরও বেশি সময় ধরে লাদাখ সীমান্তে ভারত ও চীনা সেনাদের মধ্যে উত্তেজনার পর গত ১৫ জুন (সোমবার) উভয় পক্ষ সংঘাতে জড়ায়। এতে ভারতের ২০ সেনা নিহত ও অপর ৭৬ জন আহত হয়। ভারত দাবি করে আসছে, চীনের অন্তত ৪৫ জন হতাহত হয়েছে। তবে চীন সরকারিভাবে কোনও হতাহতের খবর জানায়নি। দুই দেশই পরস্পরের বিরুদ্ধে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করার অভিযোগ এনেছে।

সূত্র: এনডিটিভি, আনন্দবাজার