সংবাদ শিরোনাম

বিয়ে পাগল স্বামীর গোপনাঙ্গ ব্লেড দিয়ে কেটে দিলেন স্ত্রী!সিরাজগঞ্জে আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় ব্যবসায়ী ও শিশু নিহতটিকা সবাইকে দিয়ে নিই, তারপর আমি নেবো: প্রধানমন্ত্রীসুনামগঞ্জে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী ২ মাসের অন্তঃসত্ত্বা, ১ জন আটকসংঘর্ষ, গোলাগুলি অতঃপর দুই লাশে শেষ হলো চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনরংপুরে ইটভাটায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান, ১৯ লাখ টাকা জরিমানানির্বাচন বর্জন করলেন ইসলামী আন্দোলনের মেয়র প্রার্থী জান্নাতুল ইসলামদেশের প্রথম করোনা টিকা নিলেন নার্স রুনুমুন্সিগঞ্জে শিশু ধর্ষণের দায়ে যুবকের যাবজ্জীবনদেশে করোনা টিকা কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • আজ ১৩ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সামনে আরও ভয়াবহ পরিস্থিতি অপেক্ষা করছে: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

◷ ১০:০০ পূর্বাহ্ন ৷ মঙ্গলবার, জুন ৩০, ২০২০ আন্তর্জাতিক
53211949 304

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- করোনাভাইরাস (কোভিড ১৯) মহামারি ইতিমধ্যে বিশ্বজুড়ে পাঁচ লাখেরও বেশি মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছাড়িয়েছে এক কোটি। করোনা ঠেকানোর সঠিক দিশা পাচ্ছে না কেউ। এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি করার পরও এই ভাইরাসের আসল রূপ দেখানো নাকি এখোনো বাকি! হ্যাঁ, এমনটাই বলছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান তেদরোস আধানম গেব্রেসাস সোমবার বলেছেন, করোনার আক্রমণের ‘ভয়াবহ পরিস্থিতি দেখা এখনো বাকি’।

ভার্চ্যুয়াল ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার সঠিক পদক্ষেপ না নিলে আরও বেশি মানুষ করোনাভাইরাসের শিকার হবে। খবর বিবিসির।

তিনি বলেন, “আমরা সবাই চাই এ মহামারী শেষ হোক। সবাই চাই স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ফিরতে। কিন্তু এই মহামারী শেষ হওয়ার ধারেকাছেও নেই।”

“বিশ্বে অনেক দেশ যদিও মহামারী কিছুটা সামলে উঠতে পেরেছে, তবু এ মহামারী আসলে আরও গতি পাচ্ছে।”

করোনাভাইরাসের ভয়াবহতা উল্লেখ করে গেব্রিয়েসুস বলেন, চীন প্রথম ডব্লিউএইচও কে এ ভাইরাস সম্পর্কে সতর্ক করার পর মাত্র ছয়মাসে বিশ্ব আক্রান্তের সংখ্যা কোটি ছাড়িয়ে যাওয়া এবং ৫ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যুর মাইলস্টোন পেরিয়েছে।

ডব্লিউএইচও এর করোনা বিষয়ক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে মহাপরিচালক তেদ্রোস বলেন, ‘ছয় মাস আগে, আমরা কেউই ভাবতে পারিনি যে না যে কীভাবে গোটা বিশ্ব এবং আমাদের জীবনকে এই নতুন ভাইরাস মারাত্মক এক টালমাটাল অবস্থার মধ্যে ফেলে দেবে।’

বিশ্বজুড়ে বেশিরভাগ মানুষ ঝুঁকিতে থাকায় ভাইরাস সংক্রমণ এখনও আরো বড় পরিসরে ছড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কা আছে বলেও জানান গেব্রিয়েসুস।