রোহিঙ্গা নির্যাতনের ঘটনায় ৩ সেনাকে দোষী সাব্যস্ত করেছে মিয়ানমার

১১:৩৭ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুন ৩০, ২০২০ আন্তর্জাতিক
MYNMAR-BRITAIN-DIPLOMACY-ROHINGYA-UNREST

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো বর্বর নির্যাতনে তিন সেনা সদস্যকে দোষী সাব্যস্ত করেছে মিয়ানমার। কোর্ট মার্শালের মাধ্যমে তাদের সাজার ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী। ২০১৭ সালে রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো গণহত্যার অভিযোগে জাতিসংঘের শীর্ষ আদালতে অভিযুক্ত হওয়ার পর মঙ্গলবার এই সাজার কথা জানাল তারা।

এই বিচারিক কার্যক্রমকে নজিরবিহীন বলছে দেশটির সেনাবাহিনী। তবে অভিযুক্তদের কী ধরনের শাস্তির আওতায় আনা হচ্ছে সেটি বিস্তারিত জানায়নি নেইপিদো। এছাড়া শাস্তি পাওয়া সেনা কর্মকর্তাদের পরিচয়, তাদের অপরাধ ও শাস্তি সম্বন্ধে কিছু জানানো হয়নি।

বছর তিনেক আগে মিয়ানমার সেনাদের ব্যাপক হত্যা, ধর্ষণ, লুণ্ঠনসহ অমানবিক নির্যাতনের মুখে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় অন্তত সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা। মানবাধিকার সংগঠনগুলো রাখাইনের বেশ কয়েকটি গ্রামে ব্যাপক গণহত্যার অভিযোগ তুলেছে মিয়ানমার সেনাদের বিরুদ্ধে। এর মধ্যে গু ডার পাইন নামে একটি গ্রামে অন্তত পাঁচটি গণকবরের সন্ধান পাওয়ার দাবি উঠেছে।

ওই ঘটনায় এরইমধ্যে জাতিসংঘের বিচারিক আদালতে বিচারের মুখোমুখি হতে হয়েছে মিয়ানমারকে। নির্যাতন ও গণহত্যার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে জাতিসংঘের তদন্তের মধ্যেই নিজেদের সেনা সদস্যদের বিরুদ্ধে এমন ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানালো মিয়ানমার সামরিক বাহিনী।

যদিও, প্রথম থেকেই গণহত্যার অভিযোগ অস্বীকার করে আসছিল তারা। পরবর্তীতে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন এবং জাতিসংঘের চাপে অভিযোগের সত্যতা প্রমাণে তদন্তে নামে দেশটির সামরিক বাহিনী। ২০১৭ সালে রাখাইনে রোহিঙ্গা নির্যাতন ও গণহত্যার পর দেশটি থেকে সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে পালিয়ে আসছে সাড়ে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা।