সিদ্ধান্তে অটল বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা, বেনাপোলে আজও ভারতীয় পণ্য আমদানি বন্ধ

২:১৪ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, জুলাই ২, ২০২০ ফিচার

মহসিন মিলন, বেনাপোল প্রতিনিধি- ভারত বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ না করার প্রতিবাদে আজ বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দিনের মতো বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতীয় পণ্য আমদানি বন্ধ করেছে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা। ফলে বেনাপোল বন্দরে প্রবেশের অপেক্ষায় শতশত পণ্য বোঝাই ট্রাক আটকা পড়ে আছে বেনাপোলের ওপারে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে।

বেনাপোল বন্দর ব্যবহারকারী ৫টি সংগঠন, বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ না করা পর্যন্ত ভারত থেকে সকল ধরণের পণ্য আমদানি বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে। ফলে গত ৩ মাসে ভারতের সাথে রফতানি বাণিজ্য ঘাটতি দেখা দিয়েছে ২ হাজার কোটি টাকা।

বেনাপোল বন্দরে আটকা পড়েছে ৫০০ ট্রাক রফতানি বোঝাই পণ্য। গত তিন মাস ধরে এসব ট্রাক আটকে আছে বেনাপোল বন্দরে। দীর্ঘ ৩ মাস বন্ধ থাকার পর গত ৭ জুন বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি বাণিজ্য চালু হলেও বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ করতে অনীহা প্রকাশ করে ভারত। ভারত সরকার ও সেদেশের ব্যবসায়ীরা ভারতীয় পণ্য বাংলাদেশে রফতানির অনুমতি দিলেও বাংলাদেশি রফতানি পণ্য ভারতে প্রবেশের অনুমতি দিচ্ছে না।

বেনাপোল চেকপোষ্ট এলকায় রফতানি পণ্যের গাড়ি দাঁড়িয়ে থাকায় তেরী পোষাক, গার্মন্টস পণ্য ও পাটজাত পণ্যসহ বিভিন্ন পণ্য থাকায় রোদ বৃষ্টিতে ভিজে পুড়ে নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশনের সভাপতি আলহাজ্ব মফিজুর রহমান সজন জানান, ভারত আমদানি পণ্য দিলেও তারা বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ করছেন না। ফলে বন্দর ব্যবহারকারী ৫টি সংগঠন ভারত থেকে আসা আমদানি বাণিজ্য বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে। আজ সকাল সাড়ে ১১টায় চলমান পরিস্থিতি নিয়ে বেনাপোল বন্দর ব্যবহারকারী সংগঠনগুলো স্থানীয় সিএন্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশন মিলনায়তনে জরুরী সভায় মিলিত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন বেনাপোল সিএন্ড এফ এজেন্টস এসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন। ফলে আজও ভারত থেকে কোন আমদানি পণ্য বাংলাদেশে প্রবেশ করেনি। বাংলাদেশি রফতানি পণ্য ভারতে ঢুকতে না পেরে মোটা অংকের ট্রাক ডেমারেজ গুনতে হচ্ছে বাংলাদেশি রফতানি কারকদের।

বেনাপোল কাস্টমস এর সহকারী কমিশনার আকরাম হোসেন জানান, আজ দ্বিতীয় দিনের মতো আমদানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে ভারত থেকে। বন্দর ব্যবহারকারী সংগঠনগুলো বাংলাদেশি রফতানি পণ্য গ্রহণ না করার প্রতিবাদে গতকাল থেকে ভারতীয় পণ্য আমদানি বন্ধ করে দেয়। তবে বেনাপোল বন্দর ও কাস্টমস হাউসে কাজকর্ম চলছে স্বাভাবিকভাবে।

বেনাপোল বন্দরের ডাইরেক্টর মামুন কবীর তরফদার জানান, বাংলাদেশি রফতানি পণ্য ভারত গ্রহণ না করার প্রতিবাদে বাংলাদেশি বন্দর ব্যবহারকারী বিভিন্ন সংগঠন গতকাল থেকে ভারতীয় পণ্য আমদানি বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে গত ২ দিন ধরে পণ্য আমদানি বন্ধ রয়েছে।

তবে বন্দরে কাজকর্ম স্বাভাবিক রয়েছে। বন্দর থেকে পণ্য ডেলিভারী অব্যাহত আছে। ওপারে শতশত আমদানি পণ্য বোঝাই ট্রাক আটকে আছে যত্রতত্র। বেনাপোল বন্দর এলাকায় ৪/৫’শ রফতানি পণ্য বোঝাই ট্রাক আটকে আছে।

Skip to toolbar