সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বাজেটের কপি ছিঁড়ে সংসদের ‘চরম অবমাননা’ করেছেন বিএনপির এমপিরা

১০:৪০ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, জুলাই ২, ২০২০ জাতীয়
kader

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ সংসদ ভবনের সামনে বাজেটের কপি ছিঁড়ে বিএনপির সংসদ সদস্যরা জাতীয় সংসদের ‘চরম অবমাননা’ করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন থেকে বাজেট পাস-পরবর্তী ভিডিও বার্তায় তিনি এ মন্তব্য করেন। বাজেটের কপি ছিঁড়ে ফেলাকে শপথ ভঙ্গের শামিল বলেও মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

ওবায়দুল কাদের বলেন, জাতির এ ক্লান্তিকালে বিএনপি দায়িত্বশীল আচরণ করেনি। সংসদে যাতে বাজেট পাস না হতে পারে তারা সেটাই চেয়েছিলেন। বিএনপি দেশে হতাশাজনক অবস্থা দেখতে চেয়েছিল। তিনি বলেন, বিএনপির সংসদ সদস্যরা যা করেছেন তা শপথ ভঙ্গেরও শামিল।

ওবায়দুল কাদের এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, আওয়ামী লীগ মানুষের মধ্যে আশার আলো সঞ্চার করতে পেরেছে, যা এই প্যানডেমিক পরিস্থিতিতে অত্যন্ত প্রয়োজন ছিল।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে এই বাজেটের প্রেক্ষাপট, বৈশ্বিক পরিস্থিতিসহ দেশীয় বাস্তবতা, করোনা পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে এদেশের মানুষের জন্য তার সরকারের নানামুখী উদ্যোগ ও সহায়তা এবং বাংলাদেশকে একটি সুখী-সমৃদ্ধশালী রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তুলতে তার গৃহীত পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন। বাংলাদেশ তথা বিশ্ব মানবতার এই ক্রান্তিলগ্নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার এই ভাষণ বাঙালি জাতির ইতিহাসে এক ঐতিহাসিক দলিল হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে।

দুর্ভাগ্যজনকভাবে এই মহামারীর মধ্যেই বাজেট প্রণয়ণের কথা তুলে ধরে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, পৃথিবীর অধিকাংশ দেশের আর্থিক বছরের গণনা আমাদের চেয়ে ভিন্ন হওয়ায় (যেমন জানুয়ারি টু ডিসেম্বর, এপ্রিল টু মার্চ, অক্টোবর টু সেপ্টেম্বর) তাদের এই সময়ে বাজেট করতে হয়নি। বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্ববৃহৎ ৫ লক্ষ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। অথচ এই সময়ে যে সকল দেশ বাজেট প্রণয়ন করেছে, তাদের অধিকাংশই করোনা পরিস্থিতির কারণে বাজেট উল্লেখযোগ্যভাবে সংকোচন করেছে।

“কোন কোন দেশ বাজেট দিতে ব্যর্থ হয়ে বিশেষ আইনের সহায়তায় বাজেট প্রণয়ন স্থগিত করেছে। এই সময়ে দক্ষিণ এশিয়ার দুই একটি দেশসহ (যেমন পাকিস্তান) পৃথিবীর অনেক দেশে ঋণাত্মক প্রবৃদ্ধি হয়েছে।”

করোনা মহামারীর প্রভাবে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য খাতে যে সাময়িক প্রয়োজন দেখা দিয়েছে তা মেটানো এবং অর্থনীতির বিভিন্ন খাতে যে ক্ষয়-ক্ষতি সৃষ্টি হবে তা পুনরুদ্ধারের কৌশল বিবেচনায় নিয়ে এই বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

Skip to toolbar