সংবাদ শিরোনাম
বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রচলিত আজব কিছু কুসংস্কার | টিকটক সেলিব্রেটি ‘অফু বাই’ গ্রেফতার | শচীনের ব্যাটেই ৩৭ বলে সেঞ্চুরি করেছিলেন আফ্রিদি! | বাউফলে পানিতে ডুবে একই পরিবারের তিন বোনের মর্মান্তিক মৃত্যু | হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িতে হামলা: যুবলীগ নেতাসহ জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবি | ‘শেখ হাসিনা প্রমাণ করেছেন সঠিক নেতৃত্বে দুর্যোগ মোকাবেলা করা সম্ভব’- তথ্যমন্ত্রী | সাবেক সেনা কর্মকর্তার মৃত্যুতে মির্জা ফখরুলের বিবৃতি | কুড়িগ্রামে করোনার উপসর্গ নিয়ে পুলিশ সদস্যের মৃত্যু | নেপালে ভূমিধসে আট নির্মাণশ্রমিকসহ ১০ জনের মৃত্যু | কোরবানির মাংস সংগ্রহ করতে গিয়ে নিখোঁজ, পানি থেকে ভাসমান মরদেহ উদ্ধার |
  • আজ ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে শ্যালক-দুলাভাই জেল হাজতে

৫:৩০ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, জুলাই ৩, ২০২০ ঢাকা
mirah

মো. সানোয়ার হোসেন,মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগের দায়ে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, উপজেলার পৌর সদরের ৮ নং ওয়ার্ডের আন্ধরা গ্রামের অমৃত মন্ডলের ছেলে সঞ্জয় মন্ডল (২৩) এবং অমৃত মন্ডলের মেয়ের জামাই পলাশ রায় (৩৫)। গ্রেপ্তারকৃতরা সম্পর্কে শ্যালক-দুলাভাই।

জানা গেছে, গত সোমবার (২৯ জুন) পৌর সদরের আন্ধরা গ্রামে ধর্ষণের ঘটনা ঘটলেও শিশুটির পিতা গত বুধবার (১ল জুলাই) মির্জাপুর থানায় এনিয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেন এবং পরবর্তীতে ওইদিনই এটি মামলা হিসেবে নথিভুক্ত হয়। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের পর বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ রয়েছে ঘটনাটি থানা-পুলিশ পর্যন্ত আসার আগে এলাকার স্থানীয় প্রভাবশালীরা এই ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলো।

মামলা সূত্রে জানা যায়, শিশুটির পিতা একজন গাড়ি চালক ও মা স্থানীয় একটি হাসপাতালে চাকরি করেন। ঘটনার দিন প্রতিদিনের মতো সকাল বেলা তারা কর্মস্থলে চলে গেলে দুপুরের দিকে বাড়িতে ওই শিশুকে একা পেয়ে ধর্ষণ করে পলাশ মণ্ডল। ধর্ষণের সহযোগিতা করেন তারই শ্যালক সঞ্জয় মন্ডল। সেসময় শিশুটির ডাক চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে গেলে দৌঁড়ে পালিয়ে যায় পলাশ ও সঞ্জয়। বর্তমানে মেয়েটি টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

শিশুটির পিতা জানান, ঘটনার পর থেকে স্থানীয় প্রভাবশালীরা আমাকে এই ঘটনা নিয়ে মিমাংসা করার জন্য প্রস্তাব দেয়। তাই থানায় মামলা করতে একটু বিলম্ব হয়েছে। ধর্ষকরা গ্রেপ্তার হয়েছে। যারা এই ঘটনা মিমাংসা করার চেষ্টা করেছে আমি তাদের বিরুদ্ধে টাঙ্গাইল কোর্টে আরেকটি মামলা দায়ের করেছি। এই ঘটনায় জড়িত সকলের উপযুক্ত বিচার চাই।

শুক্রবার ০৩ জুলাই মির্জাপুর থানা পরিদর্শক (তদন্ত) মো. গিয়াস উদ্দিন বলেন, এ ধর্ষণের ঘটনায় অভিযোগের দায়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে ধর্ষক ও তার সহযোগীকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। ভিকটিমের ডাক্তারি পরিক্ষার পর পরবর্তী আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

Skip to toolbar