গত ২৪ ঘন্টায় যুক্তরাষ্ট্রের চেয়েও বেশি মৃত্যু ভারতে

৪:০৪ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুলাই ৭, ২০২০ আন্তর্জাতিক
ind

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে বিশ্বের দ্বিতীয় জনবহুল দেশ ভারতে মৃত্যুর সংখ্যা ২০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৪৭৪ জন। একই সময়ে কেবল ব্রাজিলেই এর চেয়ে বেশি ৫৮৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার (৬ জুলাই) বিশ্বের সবচেয়ে বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এ দিনও ৪৫ হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশটিকে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩ লাখ ২৮ হাজারেরও বেশি। তবে খুশির খবর হলো গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মৃতের সংখ্যা অনেক কমে গেছে। এদিন দেশটিতে মৃত্যু হয়েছে মাত্র ২৮১ জনের।

অন্য দেশের তুলনায় ভারতে একদিনে মৃতের সংখ্যা বাড়লেও মোট আক্রান্তের হিসেবে দেশটিতে মৃত্যুর হার কমছে। সোমবার ভারতে মৃত্যুর হার ছিল ২.৮ শতাংশ। এক সপ্তাহ আগে এই হার ছিল তিন শতাংশ আর দুই সপ্তাহ আগে তা ছিল ৩.২ শতাংশ। মৃতের হার কম হলেও গত সপ্তাহ জুড়ে ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা আশঙ্কাজনক ভাবে বেড়েছে। আক্রান্তের সংখ্যার দিক দিয়ে রাশিয়াকে টপকে তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে ভারত।

মার্চের শেষে ভারতজুড়ে দেওয়া কঠোর লকডাউনের কারণে দেশটিতে মে মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত জনসংখ্যা অনুপাতে রোগী মিলছিল কমই। কিন্তু লকডাউন শিথিলের পর থেকে পরিস্থিতি পুরোপুরি পাল্টে যায়।

শনাক্ত রোগীর সংখ্যা এক থেকে দুই লাখে পৌঁছায় মাত্র ১৫ দিনে। এরপর দুই থেকে তিন লাখে ১০ দিনে, তিন থেকে চার লাখে ৮ দিনে, চার থেকে পাঁচ লাখে ৬ দিন, পাঁচ থেকে ছয় লাখে পৌঁছাতে ৫ দিন সময় লাগে। শেষ এক লাখ যোগ হতেও মাত্র ৫ দিনই সময় লেগেছে।

গত জানুয়ারিতে ভারতের কেরালায় প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। ভাইরাসটির উৎপত্তিস্থল চীনের উহান শহর থেকে ফেরা এক শিক্ষার্থীর দেহে ওই ভাইরাস শনাক্ত হয়। বর্তমানে এই মহামারিতে বিশ্বজুড়ে এক কোটি ১৪ লাখের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে।

আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় ভারতের প্রথম করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন কোভ্যাক্সিন দ্রুত চূড়ান্ত করার উদ্যোগ নিয়েছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর)। ভ্যাকসিনটি মানুষের ওপর পরীক্ষা দ্রুত সম্পন্ন করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

হায়দ্রাবাদ ভিত্তিক ভারত বায়োটেক নির্মিত প্রথম ওষুধটির প্রথম ধাপের পরীক্ষা আগামী সপ্তাহে শুরু হবে। আর এর ফলাফল আসার আগেই শুরু হবে দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা। ভারত বায়োটেক জানিয়েছে, প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য এক হাজার একশো মানুষ নির্বাচিত করা হয়েছে

Skip to toolbar