হবিগঞ্জ-বানিয়াচং আঞ্চলিক সড়কের ব্রীজ পানির নিচে ॥ দূর্ভোগ চরমে

৪:০১ অপরাহ্ণ | বুধবার, জুলাই ১৫, ২০২০ সিলেট
Habigonj

মঈনুল হাসান রতন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জ-বানিয়াচং আঞ্চলিক সড়কের কালারডুবা এলাকায় অবস্থিত ব্রীজটি পানির নিচে তলিয়ে গেছে। আর এতে করে বানিয়াচং ও আজমিরীগঞ্জ উপজেলা থেকে জেলা শহরে আসা সাধারণ লোকজনের দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে।

এছাড়াও মালামাল নিয়ে ওই দুই উপজেলায় যেতে পারছে না কোন ধরণের যানবাহন। যে ক’টা যানবাহন আবার চলাচল করছে তা রীতিমত ঝুকিপূর্ণ অবস্থায়। তাই যে কোন এসময় ডুবন্ত ব্রীজটিতে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন চলাচলকারী সাধারণ লোকজন।

জানা যায়, গত কয়েকদিন ধরে টানা বৃষ্টি উজান থেকে নেমে আসা পানির ফলে হবিগঞ্জের সবক’টি হাওরে পানি বেড়েই চলেছে। এমতাবস্থায় বানিয়াচং হবিগঞ্জ সড়কের কালারডুবা এলাকায় মুল ব্রীজটি নতুন করে গড়ে তোলার ফলে বিকল্প যে ব্রীজটি স্থাপন করা হয়েছিল সেই ব্রীজটি পানির নিচে তলিয়ে গেছে। সাধারণ লোকজনদের অভিযোগ, গত কয়েকদিন ধরেই ব্রীজটির সমানে সমানে পানি ছিল। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কোন ধরণের ব্যবস্থা না নেয়ায় মঙ্গলবার ব্রীজটি পানির নিচে তলিয়ে যায়।

শহরে ডাক্তার দেখাতে আসা রোগীর স্বজন আনিছুর রহমান জানান, তিনি তার এক আত্মীয়কে নিয়ে হবিগঞ্জ শহরে ডাক্তার দেখাতে এসেছিলেন। পথিমধ্যে কালারডুবা এলাকায় ব্রীজটি পানির নিচে দেখে তিনি অনেক কষ্ট করে পানির উপর দিয়ে রোগী নিয়ে হেটে ব্রীজটি পার হয়ে ফের অপর পার থেকে গাড়ি নিয়ে শহরে যান।

ব্যবসায়ী রতন সরকার জানান, কালারডুবা ব্রীজটি পানি বৃদ্ধির ফলে তলিয়ে গেছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যদি পুর্বেই বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহন করতা তা হলে হয়তো এত দুর্ভোগে পড়তে হত না তাদের। এখন জেলা শহর থেকে মালামাল নিয়ে যাওয়া বেশ কষ্ট সাধ্য বলেও জানান তিনি।

সিএনজি (অটোরিক্সা) চালক মুছা মিয়া জানান, পানির নিচে তলিয়ে থাকা ব্রীজটি দিয়েই তাদের কে যাত্রী নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। আর এতে করে যে কোন সময় বড় ধরণের দুর্ঘটনা বা প্রাণহানিও হতে পারে।

হবিগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সজিব আহমেদ জানান, কালারডুবায় যে ব্রীজটি তলিয়ে গেছে সেটি একটি বিকল্প ব্রীজ। মুল ব্রীজটি নির্মাণাধীন রয়েছে। এখন কিভাবে ব্রীজটি দিয়ে যানবাহন চলাচল করতে পারে সেদিকটি বিবেচনায় রেখে কাজ করা হচ্ছে।

Skip to toolbar