বিশ্বকে কয়েক দশক পিছিয়ে দিবে করোনা: জাতিসংঘ মহাসচিব

৫:৫৭ অপরাহ্ণ | বুধবার, জুলাই ১৫, ২০২০ আন্তর্জাতিক
sg-press

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে বিশ্ব অর্থনৈতিক অগ্রগতি ‘বহু বছর এবং এমনকি কয়েক দশক’ পর্যন্ত পিছিয়ে যেতে পারে।

সোমবার টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের অগ্রগতি শীর্ষক এক উচ্চ পর্যায়ের রাজনৈতিক ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গুতেরেস এই মন্তব্য করেন।

জাতিসংঘ মহাসচিব বলেন, করোনা সংকট আঘাত হানার আগে থেকেই বিশ্ব ২০৩০ সালের লক্ষ্য অর্জনের সঠিক পথে ছিল না। একসময় আমাদের মরিয়াভাবে এগিয়ে যাওয়া দরকার ছিল।

তিনি বলেন, কোভিড-১৯ আমাদের কয়েক বছর, এমনকি কয়েক দশক পেছনে নিয়ে যেতে পারে। এটি দেশগুলোকে বিশাল আর্থিক ও প্রবৃদ্ধির চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলতে পারে। এই সংকট আমাদের এসডিজি থেকে আরও দূরে নিয়ে যাচ্ছে।

এসডিজি হচ্ছে ২০৩০ সালের মধ্যে ক্ষুধা নিরসন, লিঙ্গসমতা, শিক্ষায় সমতা, চাকরির নিশ্চয়তা, অর্থনৈতিক উন্নয়নহসহ মোট ১৭টি লক্ষ্য অর্জনের বৈশ্বিক পরিকল্পনা।

গুতেরেস বলেন, করোনাভাইরাস এমন সময়ে আঘাত হেনেছে যখন বিশ্ব আগে থেকেই অগ্রহণযোগ্যভাবে দারিদ্র্য বৃদ্ধি, দ্রুত জলবায়ু পরিবর্তন, অব্যাহত লিঙ্গবৈষম্য এবং অর্থায়নে বিশাল ব্যবধানের মতো বিভিন্ন চ্যালেঞ্জের মুখে।

তিনি বলেন, সব ঠিক হয়ে যাবে- আমি এটা বলতে আসিনি। আমাদের নিজেদের প্রতি সৎ থাকতে হবে। করোনা সংকট আমাদের অতীত ও বর্তমান ব্যর্থতার জন্যই ধ্বংসলীলা চালাচ্ছে। এসময় এসডিজি অর্জনে বিশ্বনেতাদের প্রতি কঠোর ও প্রয়োগযোগ্য সমাধান খোঁজার আহ্বান জানান জাতিসংঘ মহাসচিব।

এদিকে মঙ্গলবারও বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন দুই লাখের বেশি মানুষ। মারা গেছেন প্রায় সাড়ে ৫ হাজার।

করোনার কারণে প্রায় চার মাস বন্ধ স্কুল। ব্রাজিলে এখনো করোনা পরিস্থিতির নেই কোন উন্নতি। তবে কোন কোন এলাকায় কিছু স্কুল খুললেও, বেশিরভাই বন্ধ। এ অবস্থায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার বিষয়ে খোঁজ নিচ্ছেন স্বেচ্ছাসেবীরা। বিতরণ করছেন প্রয়োজনীয় শিক্ষা উপকরণ।

ব্রাজিলের মতো পাল্লা দিয়ে মৃত এবং আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে প্রতিবেশী দেশ ভারতেও। মঙ্গলবার দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৩০ হাজার মানুষ। মারা গেছেন পাঁচ শতাধিক।

এছাড়াও মৃত এবং আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে রাশিয়া, পেরু, চিলি, মেক্সিকোসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। তবে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে উন্নতির পথে সামগ্রিক করোনা পরিস্থিতি।

Skip to toolbar