• আজ ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মারধরের অভিযোগে হিরো আলমের বিরুদ্ধে জুনিয়র মিশার মামলা

১২:০২ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, জুলাই ২৪, ২০২০ বিনোদন
alom

বিনোদন ডেস্কঃ শুটিংয়ে টাকা না দিয়ে মারধর করার অভিযোগে হিরো আলমের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম আতিকুর রহমান এই আদেশ দেন। ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নয়ন মণ্ডল ওরফে জুনিয়র মিশা বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

জুনিয়র মিশার আইনজীবী মকিম মণ্ডল বলেন, হিরো আলমের বিরুদ্ধে নয়ন মণ্ডল ওরফে জুনিয়র মিশা একটি মামলা করেছেন। আদালত মামলাটি ১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানাকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

নয়ন মণ্ডল ওরফে জুনিয়র মিশা জানান, তিনি হিরো আলমের সঙ্গে ‘সাহসী হিরো আলম’ ছবিতে সেকেন্ড ভিলেন (দ্বিতীয় খলনায়ক) হিসেবে অভিনয়ের জন্য ১৫ হাজার টাকা চুক্তি করেন। চুক্তি অনুযায়ী গাজীপুরের মনপুরা শুটিং স্পটে অভিনয় করতে যান। যেখানে কিছু দিন অভিনয় করেন।

এর মধ্যে ঢাকায় আসার সময় হিরো আলম তার হাতে ৫০০ টাকা ধরিয়ে দিয়ে বলেন, টাকা পরে দেব। নয়ন বাসায় এসে কিছুদিন পর হিরো আলমের মোবাইলে ফোন দেন। তখন হিরো আলম ফোনে নয়নকে বলে কিসের টাকা পাবি তুই। তুই কোনো টাকা পাবি না। এরপর থেকে হিরো আলম আর নয়নের ফোন ধরত না। তারপর নয়ন গাজীপুরে ছবির শুটিংস্থলে যান। সেখানে নয়ন হিরো আলমের কাছে টাকা চাইলে শুটিংয়ের দা দিয়ে আঘাত করে। কিল-ঘুষি মারে। নয়ন সেখান থেকে ফিরে আসেন।

এরপর গত ১৯ জুন নয়ন এফডিসিতে মানববন্ধনে অংশ নিতে যান। সেখানেও হিরো আলম তাকে মারধর করেন। হিরো আলমের লোকজনের ভয়ে নয়ন জীবন নিয়ে শঙ্কায় আছেন। তাই তিনি আদালতে মামলাটি করেন।

উল্লেখ্য সম্প্রতি অনন্ত জলিলের সিনেমায় কাজ করা নিয়ে বেশ আলোচনায় রয়েছেন হিরো আলম। অনন্ত জলিলের সিনেমায় কাজ করার জন্য হিরো আলমের সঙ্গে চুক্তি করা হয়। চুক্তি অনুযায়ী হিরো আলমকে সাইনিং মানিও দেন অনন্ত। তবে পরবর্তীতে আচরণগত কারণ দেখিয়ে হিরো আলমকে সিনেমা থেকে বাদ দেন ঢাকাই সিনেমার এ সুপারস্টার।

এই নিয়ে হিরো আলমের হয়ে ভিডিও বার্তা দেন বিতর্কিত প্রবাসী সেফাতুল্লাহ ওরফে সেফুদা। এই নিয়ে পাল্টাপাল্টি ভিডিও দেন অনন্ত জলিলও। যদিও শেষ পর্যন্ত এ নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন সেফুদা।

Skip to toolbar