সংবাদ শিরোনাম

বিবিসি’র বর্ষসেরা ১০০ নারী ব্যক্তিত্বের তালিকায় ২ বাংলাদেশি | বিড়ি শিল্প ধ্বংসের চক্রান্তের প্রতিবাদে সিরাজগঞ্জে বিড়ি শ্রমিকদের সমাবেশ | সুস্থ হয়ে উঠছেন রিজভী, ফিরলেন বাসায় | করোনায় আক্রান্ত নায়করাজ পরিবার | অবশেষে বাইডেনের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরে রাজি হলেন ট্রাম্প | ধর্ম মন্ত্রণালয় ছাড়া মন্ত্রিসভায় সহসাই পরিবর্তন আসছে না | আনুষ্ঠানিকভাবে সম্ভাব্য বাইডেন মন্ত্রিসভার ৬ সদস্যের নাম ঘোষণা | করোনায় মারা গেলেন দৈনিক সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুনীরজ্জামান | দীর্ঘ ৫০ বছরের আশা পূরণ হতে যাচ্ছে মতলববাসীর: এমপি রুহুল | আশুলিয়ার তাজরীন ট্রাজেডি: নিহতদের স্মরণে শ্রদ্ধা নিবেদন |

  • আজ ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজ হুরমোড়ে এগিয়ে চলছে

২:৫৫ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, জুন ১৬, ২০১৬ ঢাকা, দেশের খবর

মোঃ রুবেল ইসলাম, মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি:


i.jpgg

দেশের পরর্মদায়ক পদ্মা সফলতার ঝিলিক ছড়াচ্ছে। জোর স্রোতে নদীতে এপাড় ওপার (মাওয়া জাজিরা) সকল চ্যানেল জোড়ে সফলভাবে মোকাবেলা করে চ্যালেঞ্জ দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে সেতুর কাজ। ইতোমধ্যেই ছয়টি পাইল স্থাপন হয়ে গেছে। তবে মূল সেতুর পাইল স্থাপনের সংখ্যা আরও বেড়েছে। এর মধ্যে ৭ নম্বর পিলারে চারটি এবং ৬ নম্বর পিলারে দুটি পাইল স্থাপন শেষ।

এছাড়াও ৬ ও ৭ নম্বর পিলারে আরও একটি করে পাইল স্থাপনের কাজ রয়েছে চলমান। একই সময়ে মাওয়া থেকে ওই জাজিরা পয়েন্টে, ট্রায়াল পাইল ও টেস্ট পাইল সহ চলছে নানা কাজ। চারদিকে চোখে পড়ে নির্মাণযজ্ঞ। বিশাল আয়োজন অন্যান্য কাজও এগিয়ে চলছে। পদ্মা নদীর ভাঙ্গন প্রবণ দুই তীর এখন শান্ত। নদীটি প্রতি বছর কিছুটা ভাংগন কবলিতে যাচ্ছিল তার গতিপথ। সেই রক্ষায় পরিকল্পিতভাবে চলছে নদী শাসন প্রক্রিয়া। পুরো পদ্মা সেতুর কাজ ম্যানেজমেন্ট তথা তদারকি করবে। প্রতিষ্ঠানটিতে যুক্তরাজ্য ছাড়াও জাপান এবং বাংলাদেশী বিশেষজ্ঞ রয়েছেন।

g.jpgtr

এই প্রতিষ্ঠান পহেলা মার্চ থেকে কার্যক্রম শুরু করছে। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ১৬৮ কোটি টাকায় চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি সেতু নির্মাণ কাজ ছাড়াও পরবর্তীতে টোল অপারেটর নিয়োগ এবং ব্যবস্থাপনাও তদারকি করবে। প্রথম থেকেই পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হিসেবে কর্মরত রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার ‘কোরিয়া এক্সপ্রেসওয়ে কর্পোরেশন’ ও সহযোগী প্রতিষ্ঠান। এখনও নতুন এই পরামর্শক প্রতিষ্ঠানটি সব কিছুরই তদারকি করবে। এতে সেতুর কাজের সঠিক মান নিশ্চিত সহ সেতু নির্মাণ ব্যবস্থাপনা আরও সুচারু হবে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন।

এখন জাজিরা পয়েন্টে ড্রেজিং চলছে। ড্রেজিংয়ের বালু পাষের এরিয়াতে চরে রাখা হচ্ছে। পানির নিচে থাকা এই চর এখন ফসল উপযোগী হবে। এখানে এক মিলিয়ন ঘনফুট বালু অপসারণ হবে। আরও দু-এক সপ্তাহ এখানে ড্রেজিং হওয়ার কথা রয়েছে।