সংবাদ শিরোনাম
মানিকগঞ্জে সাংবাদিকদের উপর হামলা, আটক ১ | স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রসূতি নারীকে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ নার্সদের বিরুদ্ধে | স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ: ফরিদপুরে এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড | এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে ধর্ষণকাণ্ডে আরেক ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার | ‘নারীর দিকে আড়চোখে তাকাবে, এমন কর্মী ছাত্রলীগে নেই’- লেখক | এমসি কলেজে গণধর্ষণ: ছাত্রলীগকর্মী রনির পর গ্রেফতার রবিউল | শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন আজ | কুড়িগ্রামে আবারো বন্যা, ঘর-বাড়িতে পানি ঢুকে পড়ায় দুর্ভোগে মানুষজন | এমসি কলেজে গণধর্ষণের ঘটনায় আদালতে ধর্ষিতা গৃহবধূর জবানবন্দি | বড় ভাইদের ছত্রচ্ছায়ায় বেপরোয়া হয়ে উঠেন ধর্ষক রনি |
  • আজ ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

যে গ্রহে কখনো রাত নামে না !

১১:৩১ অপরাহ্ণ | বুধবার, জুন ২২, ২০১৬ চিত্র বিচিত্র

tatooine_sunsetচিত্র বিচিত্র ডেস্কঃ

অনেক দূরের একটি গ্রহ। গ্রহটি রয়েছে পৃথিবী থেকে ৩,৭০০ আলোকবর্ষ দূরে। এই গ্রহের রয়েছে দু দুটি সূর্য। একই সঙ্গে দুটি সূর্যকে নিয়মিত প্রদক্ষিণ করে চলে এই গ্রহটি। তাই কখনো রাত নামে না এই গ্রহে। এই বিরল বৈশিষ্ট্যের অধিকারী গ্রহটির নাম ‘কেপলার-১৬৪৭-বি’, যা ট্যাটুইন গ্রহ নামেও পরিচিত। সম্প্রতি আশ্চর্য এই ভিন গ্রহটির সন্ধান পেয়েছেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা।

মঙ্গলবার, ১৪ জুন, সান দিয়েগোয় আমেরিকান অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটির বৈঠকে এই আবিষ্কারের কথা ঘোষণা করা হয়েছে। এই আবিষ্কার সংশ্লিষ্ট গবেষণাপত্রটি বিজ্ঞান জার্নাল ‘অ্যাস্ট্রোফিজিক্যাল জার্নাল লেটার্স’-এ ছাপা হবে জুলাইয়ে।

সুপারহিট মুভি ‘স্টার ওয়র্স’ এর নায়ক লিউক স্কাইওয়াকের বাড়ি ছিল যে গ্রহে সে ট্যাটুইন গ্রহের নামে নামকরণ করা গ্রহটির আবিষ্কর্তা লেহিগ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশিষ্ট জ্যোতির্বিজ্ঞানী জোশুয়া পেপার। তাঁর সাথে এই আবিষ্কারে রয়েছেন ৪ মহাদেশের ১০ দেশের মোট ৪০ জন বিজ্ঞানী।

ট্যাটুইন তার দুইটি সূর্যকে প্রদক্ষিণ করতে সময় নেয় ১,১০৭ দিন। মানে, তিন বছরের একটু বেশি। সূর্যকে প্রদক্ষিণ করতে যে সময় নেয় পৃথিবী তার চেয়ে তিন গুণ বেশি এই সময়। এই ভিন গ্রহটি যে দুটি সূর্যকে প্রদক্ষিণ করে, তার একটি আমাদের সূর্যের চেয়ে সামান্য বড়। অন্যটি সামান্য ছোট। এই গ্রহটির বয়স ৪৪০ কোটি বছর। মানে, ট্যাটুইন আমাদের পৃথিবীরই প্রায় সমবয়সী।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এই ভিন গ্রহটির ভর ও ব্যাসার্দ্ধ একেবারে আমাদের সৌরজগতের বৃহস্পতির মতোই। এই গ্রহটি বৃহস্পতির মতোই বড়। আর তার পুরোটাই গ্যাসে ভরা। পৃথিবীর মতো পাথুরে গ্রহ এটা নয়। দু’টি সূর্যকে প্রদক্ষিণ করা ভিন গ্রহগুলিকে বলা হয় ‘সারকাম-বাইনারি প্ল্যানেট’। তবে এই গ্রহটি তাদের সূর্যের চেয়ে রয়েছে অনেকটা দূরে। যাকে বলা হয় ‘হ্যাবিটেব্‌ল জোন’। যদিও এই গ্রহটিতে প্রাণের সম্ভাবনা কম, সেটি গ্যাসে ভরা বলে। তবে এই গ্রহের যদি বড় কোনও চাঁদ থাকে, যদি তার হদিশ মেলে কোনও দিন, তা হলে সেই চাঁদে প্রাণের সম্ভাবনা থাকতে পারে। দুই দুইটি সূর্যকে কেন্দ্র করে ঘোরে বলেই এই গ্রহে কখনো সূর্যাস্ত হয় না।

এত বড় একটি গ্রহের হদিশ পেতে এত দেরি হওয়ার কারণ সম্পর্কে বিজ্ঞানীরা বলছেন, গ্রহটি তার দু’টি সূর্যকে প্রদক্ষিণ করতে অনেক বেশি সময় নেয়। আর এদের কক্ষপথও খুব জটিল। তাই সহজে এদের হদিশ মেলে না। তবে এই আবিষ্কারের অভিনবত্বটা হল এখানেই যে, সূর্যকে এত দীর্ঘ কক্ষপথে প্রদক্ষিণ (লঙ্গেস্ট অরবিটাল পিরিয়ড) করা কোনও ভিন গ্রহের হদিশ মিলল এই প্রথম। এত বড় ভিন গ্রহ এর আগে পাওয়া যায়নি। এই গ্রহটির আবিষ্কার হয়েছে কিলোডিগ্রি এক্সট্রিমলি লিট্‌ল টেলিস্কোপের(কেইএলটি) মাধ্যমে। তার দু’টি অংশ রয়েছে। একটি- আমেরিকার আরিজোনায়। অন্যটি- দক্ষিণ আফ্রিকায়।

স/বাদল