সংবাদ শিরোনাম
হাসপাতাল ছাড়লেন ইউএনও ওয়াহিদা | শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ল ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত | বাসায় নিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ: এবার ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগ নেতা গ্রেপ্তার | পা হারানো রাসেলকে আরও ২০ লাখ টাকা দেওয়ার নির্দেশ | প্রথম আলো সম্পাদকসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানির দিন ধার্য | আত্রাইয়ে বন্যার্তদের মাঝে উপজেলা প্রশাসনের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ | টিম পজিটিভ বাংলাদেশের পক্ষে ৫০০ ছিন্নমূল মানুষকে খাওয়ালেন রাব্বানী | দেবীগঞ্জে বাড়িতে হামলার বিচারের দাবিতে এলাকাবাসীর মিছিল | কাশ্মীর সীমান্তে পাকিস্তানের হামলায় ভারতীয় সেনা নিহত | বিতর্কিত অঞ্চল না ছাড়া পর্যন্ত যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার হুমকি আজারবাইজানের |
  • আজ ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ভাঙলো ডান পা, অস্ত্রোপচার হল বাম পায়ে!

১০:৩৯ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, জুন ২৩, ২০১৬ চিত্র বিচিত্র, স্পট লাইট

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক – সিঁড়ি থেকে পড়ে গিয়ে ডান পা ভেঙেছেন আর চিকিৎসকরা তাঁর বাম পায়ে অস্ত্রোপচার করেছেন। রোগীর প্রতি চিকিৎসকদের এই চরম অবহেলার চিত্র দেখা গেছে ভারতের দিল্লির শালিমার বাগে ফর্টিস হাসপাতালে। এ ঘটনায় গতকাল বুধবার এই হাসপাতালের দুই শল্যচিকিৎসক (অর্থোপেডিক সার্জন), দুই নার্স এবং এক অপারেশন টেকনিশিয়ানকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

ইন্ডিয়া টাইমস জানিয়েছে, সিঁড়ি থেকে পড়ে রবি রায়ের ডান পা ভেঙে যায়। তিনি ফর্টিস হাসপাতালে ভর্তি হন। কিন্তু চিকিৎসকরা ডান পায়ের পরিবর্তে তাঁর বাম পায়ে একাধিক স্ক্র লাগিয়ে দেন।

রবির পরিবার জানায়, শুরুতেই তাঁরা ভুল হচ্ছে বলে চিকিৎসকদের অস্ত্রোপচার বন্ধ করতে বলেন।

oparationরবির বাবা রাম করণ রায় বলেন, ‘চিকিসৎসকরা জানান, হাড়গুলো জোড়া লাগানোর জন্য অস্ত্রোপচার করা জরুরি। আমরাও রাজি হই। কিন্তু বিমার কাগজ তৈরির জন্য কিছু সময় চেয়েছিলাম। এই সময়ের মধ্যেই তারা কীভাবে ভুল পা চিহ্নিত করে সেটিতে অস্ত্রোপচার করে ফেলল। এটি চিকিৎসকদের ভুল। তাদের অবশ্যই যথাযোগ্য শাস্তি দিতে হবে।’

অস্ত্রোপচারের পর যখন রবি জ্ঞান ফিরে দেখেন তার ডান পা নয় বাম পায়ে অস্ত্রোপচার হয়েছে। তখন তিনি চিৎকার করতে থাকেন।

এ ঘটনায় হাসপাতাল একটি বিবৃতি দিয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘গতকালের ঘটনার তদন্ত করতে আমরা অবিলম্বে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করেছি। প্রাথমিক তদন্তে এই কমিটি ওই অস্ত্রোপচার দলের অবহেলাকে দায়ী করেছে। আমাদের রোগীদের জন্য আমরা অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে বাধ্যবাধকতাগুলো পালন করে থাকি। এই জায়গায় কোনো অবহেলা সহ্য করা হয় না। এ ঘটনায় চিকিৎসক ও কর্মকর্তাসহ হাসপাতালের পাঁচজনকে বরখাস্ত করা হয়েছে।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘তদন্ত এখানো বাকি আছে। তদন্ত শেষ হলে আরো কয়েকজনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’