• আজ বৃহস্পতিবার, ২১ শ্রাবণ, ১৪২৮ ৷ ৫ আগস্ট, ২০২১ ৷

ব্রীজ ভেঙ্গে ১২ রুটে যান চলাচল বন্ধ: মঠবাড়িয়ায় ঈদে ঘরমুখো মানুষের জনদুর্ভোগ চরমে


❏ বুধবার, জুন ২৯, ২০১৬ দেশের খবর, বরিশাল

এস এম আকাশ, মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া-চরখালী সড়কের মঠবাড়িয়া অংশের গুদিঘাটা বেইলী ব্রীজ পাথর বোঝাই দুই ট্রাক সহ ধসের পনের দিন পার হলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিধ্বস্ত ব্রীজটি মেরামতে কোন উদ্যোগ নেয়নি। ফলে এ সড়কে সরাসরি ১২টি রুটের যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে উপকূলীয় কয়েক লাখ ঈদে ঘরমুখো মানুষের চলাচলে চরম দুর্ভোগের সৃষ্টি হচ্ছে।

gudaghat

স্থানীয়দের অভিযোগ, পিরোজপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) দুই মাস আগে পুরানো ব্রীজটি খুলে নিয়ে অতি পুরানো একটি নরবরে ব্রীজটি স্থাপনের কারনেই এ দুর্ঘটনা ঘটে। ব্রীজটি ধসের সময় একজন ঘটনাস্থলেই নিহত হয়।

দক্ষিণ অঞ্চলের প্রবেশদ্বার পাথরঘাটা-মঠবাড়িয়া-পিরোজপুর সড়কের গুরুত্বপূর্ণ এ বেইলী ব্রীজটি ধসের কারনে পনের দিন ধরে সরাসরি যান চলাচল বন্ধ থাকায় যাত্রী দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করছে। অপর দিকে এ সড়কের বরগুনার পাথরঘাটা মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র হতে দেশের দুর দুরান্তে মৎস্য পরিবহনে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

গুদিঘাটা বাজারের ব্যবসায়ি মোঃ বাবুল গাজি জানান, বীজটির অভাবে পারাপারে চরম জন দুর্ভোগের সৃষ্টি হচ্ছে। ব্রীজ সংলগ্ন খালে এখন খেয়া নৌকায় পারাপার চলছে। এ জন্য যাত্রী সাধারণের কাছ থেকে জনপ্রতি পাঁচ টাকা আদায় করা হচ্ছে। এছাড়া ব্রীজের অভাবে এক কিলোমিটার কাঁচা বিপর্যস্ত সড়ক ঘুরে মানুষকে চলাচল করতে হচ্ছে।

উল্লেখ্য, অতিষ্ট এলাকাবাসি বিধ্বস্ত সেতুটি ঈদের আগে পুনঃনির্মাণের দাবিতে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) নামে সামাজিক সংগঠনের উদ্যোগে মানববন্ধন ও সমাবেশ করলেও সড়ক ও জনপদ বিভাগ ব্রীজটি মেরামতের কার্যত কোন উদ্যোগ নেয়নি।

ঈদের আগে সড়কটিতে সরাসরি যান চলাচলের কোন ব্যবস্থা করা হবে কি না জানতে চাইলে পিরোজপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) নির্বাহী প্রকৌশলী ফজলে রাব্বি সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, ভেঙে যাওয়া ব্রীজের স্থলে কালভার্ট নির্মাণের কাজ দ্রুত গতিতে চলছে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন