সংবাদ শিরোনাম
ম্যাকরনকে মুসলিম বিশ্বের কাছে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানাল লিবিয়া | রিফাত হত্যা: অপ্রাপ্ত বয়স্ক ১১ আসামির বিভিন্ন মেয়াদে সাজা | সংসদে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব আনার দাবি চরমোনাই পীরের | প্রতিদিন ১২শ’ লিটার আতর দিয়ে ধোয়া হয় পবিত্র কাবা শরিফ | কোরআন পাঠ চলাকালে পাকিস্তানে মাদ্রাসায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ, নিহত ৭ | বিশ্বনবীকে অবমাননা করায় ক্ষেপেছেন এরদোগান, ফ্রান্স-তুরস্ক বিরোধ তুঙ্গে | আজই কাউন্সিলর পদ থেকে ইরফানকে বরখাস্ত করা হবে: তাজুল ইসলাম | রংপুরে নবম শ্রেণির ছাত্রীকে গণধর্ষণ: দুই আসামিকে আদালতে নেওয়া হয়েছে | হাজী সেলিমের প্রটোকল অফিসার টাঙ্গাইলে গ্রেফতার | রংপুরে স্কুলছাত্রী গণধর্ষণের ঘটনায় আরও দুইজন গ্রেফতার |
  • আজ ১১ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

খালাস চেয়ে হবিগঞ্জের ‘রাজাকার’ দুই ভাইয়ের আপিল

১১:৫৯ পূর্বাহ্ন | বৃহস্পতিবার, জুন ৩০, ২০১৬ Breaking News, আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর – একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ের মহিবুর রহমান ওরফে বড় মিয়া মৃত্যুদণ্ড থেকে ও আব্দুর রাজ্জাক আমৃত্যু কারাদণ্ড থেকে খালাস চেয়ে আপিল করেছেন। আজ বৃহস্পতিবার আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় তাদের আইনজীবী মাসুদ রানা এ আপিল করেন।

আপিল আবেদনে ৯ শতাধিক পৃষ্ঠার নথিপত্র দাখিল করা হয়েছে।

এর আগে গত ১ জুন মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ের তিন ভাইয়ের মধ্যে মহিবুর রহমান ওরফে বড় মিয়াকে মৃত্যুদণ্ড, তার ছোট ভাই মুজিবুর রহমান আঙ্গুর মিয়া এবং তাদের চাচাত ভাই আব্দুর রাজ্জাককে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেন ট্রাইব্যুনাল।

traibunal

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চ এ রায় দেন। ট্রাইব্যুনালের বাকি দুই সদস্য হলেন, বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলাম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ারদী।

তবে মুজিবুর রহমান আঙ্গুর মিয়া এখনো আপিল করেনি।

২০১৪ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি একই মামলার আসামি মহিবুর ও মুজিবুরের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়। এরপর ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল মামলার তদন্ত শেষ করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা নুর হোসেন। ২৯ এপ্রিল ধানমণ্ডি কার্যালয় সেফহোমে সংবাদ সম্মেলনে তদন্তের প্রতিবেদন প্রকাশ করে তদন্ত সংস্থা।

এর আগে ২০১৫ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি তদন্তের স্বার্থে মহিবুর রহমান বড় মিয়া ও মুজিবুর রহমান আঙ্গুর মিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন ট্রাইব্যুনাল।

এর পর পরই দুপুর ১২টার দিকে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার ইমামবাড়ি এলাকা থেকে খাগাউড়া ইউপির প্রাক্তন চেয়ারম্যান মহিবুর রহমান ও প্রাক্তন ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমানকে গ্রেপ্তার করে হবিগঞ্জ গোয়েন্দা পুলিশ। ১২ ফেব্রুয়ারি আদালতে হাজির করা হলে তাদের কারাগারে পাঠিয়ে দেন ট্রাইব্যুনাল।

এরপর ৩১ মে এ তিনজনের বিরুদ্ধে চার অভিযোগ আমলে নেন ট্রাইব্যুনাল। ২৯ সেপ্টেম্বর বিচারপতি মো. আনোয়ারুল হক নেতৃত্বাধীন ট্রাইব্যুনাল তিন আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।

২০০৯ সালে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আকল মিয়ার স্ত্রী ভিংরাজ বিবি হবিগঞ্জের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কগনিজেন্স-৪ এর বিচারক রাজীব কুমার বিশ্বাসের আদালতে মহিবুর ও মুজিবুরের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে মামলাটি (নং- ২৭০/০৯) দায়ের করেন। পরে মামলাটি আদালত থেকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়।