সংবাদ শিরোনাম

সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্তরোহিঙ্গা শিশু অপহরণের পর হত্যার ঘটনায় নারীসহ দু’জন গ্রেপ্তারবেলকুচিতে দূর্বৃত্তদের আগুনে পুড়ে গেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান !জামালপুরে মাদ্রাসা ছাত্রীকে রাতভর ধর্ষণ, গ্রেফতার মাদ্রাসার শিক্ষক‘করোনাকালের নারী নেতৃত্ব: গড়বে নতুন সমতার বিশ্ব’বগুড়ায় শিক্ষা প্রনোদনা পেতে প্রত্যয়নের নামে টাকা নেয়ার অভিযোগজামালপুরে ধর্ষণ মামলায় ধর্ষকের যাবজ্জীবনপাবনায় অবৈধ অস্ত্র তৈরির কারখানায় অভিযান, চারটি আগ্নেয়াস্ত্রসহ গ্রেফতার-২উপজেলা আ.লীগের সভাপতিকে ‘পেটালেন’ কাদের মির্জা!কে কত বড় নেতা, সবাইকে আমি চিনি: কাদের মির্জা

  • আজ ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মার্কিন স্টাইলের মানবাধিকারের নিন্দা করলেন আয়াতুল্লাহ খাতামি

৭:১৫ অপরাহ্ন | শনিবার, জুলাই ২, ২০১৬ আন্তর্জাতিক

4bk7c137c19edb9k51_800C450


আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

তেহরানের জুমা নামাজের অস্থায়ী খতিব আয়াতুল্লাহ আহমাদ খাতামি বলেছেন, ইরানে ইসলামি বিপ্লব সফল হওয়ার পর জুন থেকে জুলাই মাসের মধ্যে আমেরিকা যেসব অপরাধ করেছে সেগুলোই হচ্ছে তাদের মানবাধিকারের নমুনা। সে সময় সবাই দেখেছে আমেরিকা ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের অভ্যন্তরে ধারাবাহিকভাবে কী ধরনের অপরাধযজ্ঞ চালিয়েছে।

তিনি বলেন, ওই সময়ে মার্কিন পুতুলরা একের পর এক সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে যার মধ্যে ইরানের বর্তমান সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামনেয়ীকে গুপ্তহত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। এছাড়া, ইসলামি প্রজাতন্ত্র দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বোমা বিস্ফোরণ এবং প্রধান বিচারপতি আয়াতুল্লাহ মোহাম্মাদ হোসেইন বেহেশতি ও বেশ কয়েকজন মন্ত্রীসহ ৭২ জন সংসদ সদস্যকে শহীদ করার ঘটনা ঘটিয়েছে।

সারদাশতের কেমিক্যাল বোমা হামলা, ইয়াজদে আয়াতুল্লাহ সাদুকির শাহাদাত এবং পারস্য উপসাগরের আকাশ থেকে মার্কিন নৌবাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ইরানি যাত্রীবাহী বিমান ভূপাতিত করার ঘটনা সবই সে সময় আমেরিকার অপরাধের কথা তুলে ধরে। এসব ঘটনার সঙ্গে আমেরিকার প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ সম্পর্ক রয়েছে। এসব অপরাধের জন্য আমেরিকার লজ্জিত হওয়া উচিত বলেও আয়াতুল্লাহ খাতামি মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, আমেরিকা মুখে মানবাধিকারের স্লোগান দেয় কিন্তু তারা সারা বিশ্বে অপরাধ ও বর্বরতার মাধ্যমে প্রতিনিয়ত মানবাধিকার লঙ্ঘন করে চলেছে; তারাই উগ্র সন্ত্রাসী ও ইহুদিবাদী ইসরাইলকে মদদ দিয়ে চলেছে। এখন বিশ্ববাসীকে বুঝতে হবে যে, আমেরিকা হচ্ছে মানবধিকার লঙ্ঘনের প্রধান শক্তি।