• আজ ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশের পক্ষে ক্ষমা চাইতে এসেছি

১:৩৭ অপরাহ্ন | সোমবার, জুলাই ৪, ২০১৬ ফিচার

201607041সময়ের কণ্ঠস্বর- বৃষ্টির ফোটায় ঘাস থেকে রক্তের দাগগুলো মুছে গেছে। নিস্তব্ধ পরিবেশ আর থমথমে অবস্থা এখনও কাটেনি। অন্য দিনের মত নেই তেমন জন ব্যস্ততা।  চারিদিকে সুনশান নীরবতা। হলি আর্টিজান বেকারির পাশের গলিতে সাধারণ মানুষের আনাগোনা হাতে গোণা। তবে আর্টিজান হলি বেকারির কাছে দেশি ও বিদেশি মিডিয়া কর্মীদের ভিড়। প্রায় ১৫ থেকে ২০ জন সাংবাদিক এসেছেন জাপান থেকে। তাদের মধ্যে একজন জাপানি টিবিএস থেকে এসেছেন সাংবাদিক কুবুতা। তিনি বলেন, আপনাদের মতো আমিও সংবাদ কাভার করতে এসেছি।

এর বেশি কিছুর উত্তর দিতে রাজি হননি তিনি। তার মুখাবয়ব দেখে বোঝা গেল মনের মধ্যে এখনও শঙ্কা কাজ করছে মৃত্যুপুরীকে ঘিরে।’

পাশাপাশি সাধারণ মানুষও ঘৃণা জানাতে এসেছেন মৃত্যুপুরীকে। সোনার বাংলায় এমন ঘটনা যাতে না ঘটে সেই লক্ষ্যে অনেকেই সচেতনতামূলক পরামর্শ দিয়ে গেছেন সংবাদকর্মীদের।

গুলশান-২ থেকে এসেছেন মুক্তিযোদ্ধা ফতেহ আলী চৌধুরী এবং কবিতা চৌধুরি দম্পতি। এর আগে অনেকবার এই রেস্টুরেন্টে ডিনার করেছেন তারা। গুলশান ঘটনায় পরিবারের কেউ হতাহত হননি। তবে যারা নিহত হয়েছেন তাদের কাছে ক্ষমা চাইতে এসেছেন তারা।