শোষণ-দুঃশাসনের পটভূমিতেই জঙ্গিবাদের উত্থান

১২:১৫ পূর্বাহ্ন | মঙ্গলবার, জুলাই ৫, ২০১৬ মুক্তমত

belal chodhuri

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক –   আমাদের দেশসহ বিশ্বব্যাপী পুঁজিবাদী- স্রাম্রাজ্যবাদী শোষণ-দুঃশাসন আজ মানুষের জীবনকে সবদিক থেকে দুর্বিসহ করে তুলেছে। ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক সংকটে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের জীবন বিপর্যস্ত। অন্যদিকে সীমাহীন শোষণ-দুর্নীতির মাধ্যমে স্বল্পসংখ্যক মানুষ আকাশচুম্বী সম্পদের মালিক হচ্ছে। বাড়ছে ধনী- দরিদ্রের বৈষম্য। নিদারুন অবক্ষয় ঘটছে নৈতিকতা- মূল্যবোধ ও মনুষ্যত্বের। দিনে দিনে বাড়ছে সামাজিক অস্থিরতা। শাসক শ্রেণী এবং তাদের নীতি -আদর্শহীন গণবিরোধী রাজনীতি তরুণ-যুব সমাজের সামনে কোনও উন্নত আদর্শ ও জীবনবোধের সন্ধান দিতে পারছেনা। দিশেহারা যুবসমাজের একটা অংশ আত্মকেন্দ্রিকতা, স্বার্থপরতা ও ভোগবাদী মানসিকতায় আচ্ছন্ন হয়ে অপ-রাজনীতির বৃত্তবন্দী হচ্ছে অথবা রাজনীতি-বিমুখ হয়ে প্রকারান্তরে প্রচলিত ব্যবস্থার সেবাদাসে পরিণত হচ্ছে। আবার কেউ কেউ বিদ্যমান ব্যবস্থা ও রাজনীতির উপর বিক্ষুব্দ হয়ে ধর্মাশ্রয়ী জঙ্গিবাদের যুপকাস্টে নিজেদের বলি দিচ্ছে। এভাবে দিশাহীন, বিভ্রান্ত তরুণ যুবশক্তি সামাজিক প্রয়োজনে নিজেদের যথার্থ ভূমিকা পালনে ব্যর্থ হচ্ছে।

আমাদের রাষ্ট্র ক্ষমতায় এখন অনির্বাচিত, অগণতান্ত্রিক সরকার। শাসক শ্রেণীর ক্ষমতাসীন ও ক্ষমতা বহির্ভূত অংশের মধ্যে চলছে নীতিবর্জিত রাজনীতির নগ্ন চর্চা। ক্ষমতাকেন্দ্রিক রাজনীতির স্বার্থে এরা সবাই জঙ্গিবাদ-মৌলবাদ-অশুভ শক্তিকে নিজ নিজ প্রয়োজনে কাজে লাগাতে চায়। তাই শুধুমাত্র পুলিশী ব্যবস্থার উপর নির্ভর করে জঙ্গিবাদ মোকাবেলা করা সম্ভব নয়। যে কোনো অশুভ শক্তিকে মোকাবেলা করার জন্যে চাই উন্নত আদর্শবাদ, যথার্থ রাজনীতি ও সঠিক নেতৃত্ব। শোষণ ও বৈষম্যহীন গণতান্ত্রিক সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্যে জনগণের ঐক্যবদ্ধ সংগ্রাম যতো শক্তিশালী হবে, অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ ততো দৃঢ় হবে।

লেখক – সাবেক ছাত্রনেতা বেলাল চৌধুরী