• আজ ২১শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ঈদে স্বাস্থ্য সচেতনতা…

৪:৪২ অপরাহ্ন | বুধবার, জুলাই ৬, ২০১৬ লাইফস্টাইল

eid-health-precaution


লাইফস্টাইলঃ

ঈদ হলো আনন্দের দিন। আসন্ন মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম বড় ধর্মীয় উৎসব। এই ধর্মীয় উৎসবের অন্যতম প্রধান আকষর্ণ থাকে সিয়াম সাধনার মাধ্যমে সৃষ্টিকর্তার সন্তুষ্টি অর্জন। এই আনন্দের অন্যতম অনুষঙ্গ খাবার। ঈদ উৎসবে সবার মনেই প্রবল ইচ্ছা থাকে বেশি বেশি করে মিষ্টি খাবার খাওয়া। দুই-এক দিন বেশি খেতে যদিও খুব বাধা নেই, তবুও খাওয়া উচিত রয়ে-সয়ে।

মাংস খাবেনঅবশ্যই নিয়ম মেনেঃ

মাংস একদম খাওয়া যাবে না এটা কেউই আপনাকে বলছে না। তবে ডাক্তাররা আপনাকে অবশ্যই নিয়ম মেনেই মাংস খেতে বলবেন। আরেকটি বিষয় হচ্ছে, ঈদের সময় তৈলাক্ত খাবারের পরিমাণ বেশি খাওয়া হয়। তাই খাবারের সঙ্গে পর্যাপ্ত সালাদ ও সবজি রাখুন। এটি আপনার হজম প্রক্রিয়া সহজ করতে সাহায্য করবে।

খাবারের পরিমাণঃ

অতিরিক্ত পরিমাণে কোনো খাবারই খাওয়া ভালো নয়। তাই যা কিছুই খান না কেন তা যেন পরিমিত পরিমাণে হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, উচ্চরক্তচাপ, রক্তে কলেস্টেরল ও কিডনি রোগীরা অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ মতো এবং যদি খাবারের কোনো নির্দিষ্ট চার্ট বা তালিকা অনুসরণ করেন, তবে অবশ্যই সে অনুপাতেই মাংস খাবেন। তেল-চর্বিযুক্ত মাংস না খাওয়াই ভালো। এতে বুকে ব্যথা ও স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়তে পারে।

পরিপাক সহজ করতে করণীয়ঃ

শাকসবজি ও আঁশজাতীয় খাবার গ্রহণ করলে তা হজমে সাহায্য করে। গরু, মহিষ, ছাগল, খাসির মাংসে ফাইবার বা আঁশের পরিমাণ অনেক কম। এতে পরিপাকে সমস্যা হতে পারে। যাদের খাবার হজমে সমস্যা তারা খাবারের সঙ্গে পর্যাপ্ত সালাদ ও সবজি রাখতে পারেন। সেই সঙ্গে পানি খেতে হবে বেশি পরিমাণে। পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করলে তা পরিপাককে সাহায্য করে। আমাদের অনেকের মনেই একটি ভুল ধারণা আছে, তা হলো আমরা খাবারের পর হজমের জন্য কোমলপানীয় গ্রহণ করি। সত্যিকার অর্থে খাবার হজমে কোমলপানীয় কোনো ভূমিকাই রাখে না।

মনে রাখতে হবে পরিমিত খাবার সুস্থ শরীর। এ সময়ে নানা রকমের খাবার গ্রহণের ফলে অনেকেই আবার পেটের বেশ কিছু সমস্যায় ভোগেন। তাই হাতের কাছেই রাখুন খাবার স্যালাইন। তবে যদি সমস্যা বেশি বলে মনে হয় তাহলে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

কিছু নিয়ম মেনে চলুনঃ

  •  প্রতিদিন একটু ব্যায়াম করুন। অতিরিক্ত পরিশ্রম শরীরের মেদ ঝরিয়ে ফেলবে।
  •  সকালে ঘুম থেকে উঠে একটু হাঁটা-চলা করুন। ঘাম ঝরিয়ে ফুরফুরে হয়ে যান।
  •  যারা উচ্চরক্তচাপে ভুগছেন, কোরবানির মাংস খাওয়ার ব্যাপারে সচেতন থাকুন।
  •  অবশ্যই অধিক চর্বিযুক্ত মাংস খাবেন না। সেই সঙ্গে উচ্চরক্তচাপের ওষুধ নিয়মিত সেবন করবেন।
  •  প্রত্যহ মাংসের সঙ্গে সালাদ আইটেম রাখুন।
  •  প্রচুর পরিমাণে বিশুদ্ধ পানি পান করুন।