সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বাবার পর দগ্ধ মাইশাও চলে গেল না ফেরার দেশে !

১২:০৫ অপরাহ্ন | শুক্রবার, জুলাই ৮, ২০১৬ আলোচিত

স্টাফ করেসপন্ডেন্টঃ রাজধানীর উত্তরায় ট্রপিক্যাল আলাউদ্দিন টাওয়ারে আগুনে দগ্ধ এগারো বছরের শিশু মেহনাজ হাসান মাইশাও দুই সপ্তাহ মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে মারা গেল।

তারা বাবা ইঞ্জিনিয়ার মাহমুদুল হাসান রিপন ঘটনার পরদিনই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

শুক্রবার (৮ জুলাই) সকাল সোয়া ৮টার দিকে মাইশার মৃত্যু হয়। বার্ন ইউনিটের আবাসিক সার্জন পার্থশঙ্কর পাল তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মাইশার শরীরের ৫৫ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল।

maisaগত ২৫ জুন ভোরে মারা যান মাইশার বাবা মাহমুদুল। তিনি আবাসন প্রতিষ্ঠান ট্রপিক্যাল হোমসের উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি বগুড়ায়। তবে এখনও জীবন-মৃত্যুর সন্দিক্ষণে রয়েছে মাইশার ৮ মাস বয়সী ভাই মুনতাকিন।

গত ২৪ জুন বাবার সাথে ইফতারি করতে ওই ভবনে গিয়েছিল মাইশা-মুনতাকিন। কিন্তু ইফতারির আগেই লিফট ছিঁড়ে ও আগুন ধরে তারাসহ প্রায় অর্ধশতাধিক নারী-পুরুষ দগ্ধ হন। মারা যান ৬ জন।

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশের রাজলক্ষ্মী কমপ্লেক্সের পেছনেই আলাউদ্দীন টাওয়ার শপিং কমপ্লেক্স। ১৪ তলা ভবনটির ছয়তলা পর্যন্ত পোশাক, অলংকার, ইলেকট্রনিকস ও প্রসাধনীর দোকান। ওপরের তলাগুলোতে বিভিন্ন অফিস। শপিং কমপ্লেক্সে প্রবেশমুখের দুই পাশে দুটো লিফট। এর মধ্যে বাঁ পাশের লিফটটি ছিঁড়ে নিচে পড়ে যায়।