এক গোলেই মহানায়ক এডার…


অবশেষে ইউরোপিয়ান ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের গৌরব অর্জন করল পর্তুগাল। রোববার ফাইনালে ফ্রান্সকে ১-০ গোলে হারিয়ে প্রথমবারের মতো শিরোপা জয়ের স্বাদ পায় ফার্নান্দো সান্তোসের দল।

আর ফ্রান্সের বিপক্ষে একমাত্র গোলটি করেন পর্তুগীজ ফরোয়ার্ড এডার। তাও আবার বদলী খেলোয়াড় হিসেবে। ম্যাচের ৭৯ মিনিটে রেনাতো সানচেসের পরিবর্তে এডারকে মাঠে নামান পর্তুগালের অভিজ্ঞ কোচ সান্তোস। কোচের আস্থার প্রতিদান দিতে মোটেই ভুল করেননি ২৮ বছর বয়সী এই পর্তুগীজ।

নির্ধারিত ৯০ মিনিটে গোলশূণ্য ড্র হলে, ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। আর অতিরিক্ত সময়ের ১০৯ মিনিটে একক প্রচেষ্টায় ২৫ গজ দূর থেকে দুর্দান্ত শট করে প্রতিপক্ষের জালে বল জড়ান এডার। তার এই মহামূল্যবান একমাত্র গোলেই ইউরোর প্রথম শিরোপা জিতে পর্তুগাল।

পর্তুগালের জার্সিতে ২০১২ সালে অভিষেক হয় এডারের। কিন্তু পর্তুগালের হয়ে প্রথম গোলটি পান তিন বছর অপেক্ষার পর। ২০১৫ সালের জুন মাসে ইতালির বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে এই এডারের করা একমাত্র গোলেই জয় পায় পর্তুগাল।

চলতি বছরের মে ও জুন মাসে পর্তুগালকে নিজের দ্বিতীয় ও তৃতীয় গোল উপহার দেন এডার। নরওয়ের বিপক্ষে ৩-০ গোলে এবং এস্তোনিয়ার বিপক্ষে ৭-০ গোলে জয়ী দুই ম্যাচে দুটি গোল করেন তিনি। তার করা তিনটি গোলই প্রীতি ম্যাচে।

অবশেষে ইউরোর ফাইনাল ম্যাচে করলেন নিজের চতুর্থ গোল। আর এই গোলেই নিজেদেরফুটবল ইতিহাসের সেরা ট্রফি জিতল পর্তুগাল। এই গোলদাতাই তো নিশ্চিত পর্তুগালের ইতিহাসের মহানায়ক।

◷ ১১:২৭ পূর্বাহ্ন ৷ সোমবার, জুলাই ১১, ২০১৬ খেলা