দেহের বিভিন্ন অংশেই লুকিয়ে আছে দেহের সুস্থতার মন্ত্র!

◷ ১১:৩৫ পূর্বাহ্ন ৷ সোমবার, জুলাই ১১, ২০১৬ লাইফস্টাইল, স্পট লাইট

নিশীতা মিতু, লাইফস্টাইল ফিচার এডিটর, সময়ের কণ্ঠস্বর।

সুস্থ থাকতে কে না ভালোবাসে। তবু অসুস্থতাকে বাদ দিয়ে জীবন কল্পনা করা যায়না। আসুস্থতা থেকে মুক্তি পেতে ঔষধ আর ডাক্তারই আমাদের ভরসা। জানেন কি, আপনার দেহের কিছু বিশেষ অঙ্গ মালিশ বা ম্যাসেজ করার মাধ্যমে আপনি দৈনন্দিন জীবনের অনেকগুলো রোগ থেকে মুক্তি পেতে পারেন?

প্রথমেই বলা যাক ডিপ্রেশন বা হতাশার কথা। নানাবিধ কারনে হতাশা আমাদের সঙ্গী হয়। আর হতাশা দূর করতে চাই মস্তিষ্কের প্রশান্তি। আপনার পায়ের আঙুলে রয়েছে এর সমাধান। ভাবছেন কিভাবে সম্ভব! এবার থেকে তবে হতাশা ভর করলে পায়ের আঙুলের মাথার দিক চেপে ধরুন। ৩০/৬০ সেকেন্ড আলতো করে চেপে ধরে রাখুন। দুই পায়ের ক্ষেত্রেই একই কাজ করুন। পরপর তিনবার এমন করুন। এতে করে সেরেটোনিন বা সুখী হরমোন বা হরমোন আপনার মস্তিষ্কের নিউরনে পৌছাবে এবং আপনাকে মানসিক প্রশান্তি দিবে।

অনেক সময় আমাদের পেট ফাঁপা ধরে বা গা গুলিয়ে বমিভাব হয়। এমনটা হলে আপনার পায়ের তালুর বৃদ্ধাঙ্গুলির খানিকটা নিচের ফোলা বৃত্তাকার অংশ মালিশ করুন। পরপর ৩ বার ৩০/৬০ সেকেন্ড এই অংশ ম্যাসেজ করার মাধ্যমে আপনি গা গোলানো ভাব থেকে মুক্তি পেতে পারেন,

somoyerkonthosor-lifestyle
অনিদ্রা বা ইনসোমনিয়াতে ভুগেন অনেকেই। সারা রাত না ঘুমিয়ে কাটিয়ে দিতে হয়। হাতের তালুর কনিষ্ঠ আঙুলের নিচের অংশটুকু এক্ষেত্রে আপনার সাহায্যকারী বন্ধু। রাতে বিছানায় শুয়ে এই অংশটুকু ১মিনিট করে ২/৩ বার মালিশ করুন। কথিত আছে এটি প্রশান্তি সৃষ্টি করে এবং ঘুমের হার বৃদ্ধি করে।

মাসিক ঋতুস্রাব চলাকালীন সময় তীব্র পেট ব্যাথা হয়। অনেক নারীই কষ্ট পান এই ব্যাথায়। পায়ের তালুর অপেক্ষাকৃত নীচু অংশ ২ মিনিটের মত সময় ধরে আলতো করে ম্যাসেজ করুন। এটি ব্যাথা কমাবে।

মাইগ্রেন, যন্ত্রণাদায়ক এক অনুভূতি। এরপর থেকে মাইগ্রেনের ব্যাথা হলে দুই হাতের আঙ্গুলগুলোর মাথার দিকটা আলতো করে ম্যাসেজ করুন। এটি রক্ত সঞ্চালন প্রক্রিয়াকে তরান্বিত করবে সেই সাথে মাথা ও মস্তিষ্কে প্রশান্তি এনে দিবে।

সাইনাস বা সাধারণ ঠান্ডা থেকে মুক্তি মেলাবে পায়ের বৃদ্ধাঙ্গুলির তালু। এই অংশ চাপ দিয়ে আলতো করে মালিশ করুন। ভাল লাগবে।

আপনার যদি জরায়ু জনিত সমস্যা থাকে তাহলে মুক্তি মেলাবে হাতের কবজি। দুই হাতের কবজির অংশ চক্রাকারে মালিশ করুন ২/৩ মিনিট। এটি সেক্স সেল বৃদ্ধি করে এবং হরমোনের উর্বরতা বাড়ায়।

আমাদের দেহের বিভিন্ন অংশেই লুকিয়ে আছে আমাদের সুস্থতার ব্যাখ্যা। ডাক্তার বা ঔষধের সাহায্য নেওয়ার আগে এই কাজগুলো করে দেখুন। হয়ত, ভালোই উপকার পাবেন।