সিসি ক্যামেরায় মন্দিরে পুরোহিতকে ‘হত্যার উদ্দেশ্যে’ চার যুবকের সন্দেহজনক আনাগোনা, শহরজুড়ে আতংক


❏ মঙ্গলবার, জুলাই ১২, ২০১৬ Breaking News, আলোচিত, আলোচিত বাংলাদেশ, স্পট লাইট

মাগুরা প্রতিনিধি –

মাগুরার একটি মন্দিরে পুরোহিতকে ‘হত্যার উদ্দেশ্যে’ খুঁজতে গিয়েছিল চার যুবক। কিন্তু পুরোহিতকে না পেয়ে তারা ফিরে যায়। এ ঘটনা নিয়ে মাগুরা শহরে  আতংকের সাথে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে ওই চার যুবকের খোঁজে রাতভর অভিযান চালিয়েছে পুলিশ।তবে ওই চারজনের সন্ধান না পেলেও বিভিন্ন মামলার ১০ আসামিকে আটক করেছে পুলিশ ।

মাগুরা শহরের নতুন বাজার কেন্দ্রীয় কালি মন্দিরের সামনে সিসি ক্যামেরায় ধারণকৃত ফুটেজ দেখে পুলিশ ধারণা করছে, মন্দিরের পুরোহিতের উপর হামলা অথবা হত্যার জন্য তারা মন্দিরে এসেছিল। কিন্তু পুরোহিতকে না পেয়ে তারা ফিরে গেছে।

মাগুরার পুলিশ সুপার একেএম এহসান উল্লাহ জানান, সোমবার রাত ১০ টার দিকে তার কাছে খবর আসে, পায়জামা-পাঞ্জাবি পরা ও মুখে দাঁড়ি থাকা এক যুবক সন্ধ্যার পর-পর মাগুরা শহরের কেন্দ্রীয় কালিবাড়িতে প্রবেশ করে। এ সময় তার সাথে আসা অপর তিন সঙ্গী মন্দিরের বাইরে অবস্থান করছিলো। মন্দিরের ভেতরে ঢোকা সন্দেহভাজন ওই যুবক তাবিজ ও তদবির নেওয়ার কথা বলে মন্দিরের সামনে থাকা সমর কুমার নামে স্থানীয় এক দর্শনার্থীর কাছে পুরোহিত পরেশ মজুমদারের খোজঁ-খবর নিতে থাকে। কিন্তু পুরোহিত মন্দিরে নেই এবং তিনি তাবিজ দেন না বলে ওই যুবককে বলে দেন ওই দর্শনার্থী।

তিনি জানান, এক পর্যায়ে তাবিজের পরিবর্তে ফুল নেওয়ার কথা বলে ওই যুবক দর্শনার্থীর কাছে জানতে চান পুরোহিত কখন আসবেন। এ সময় সামনে থাকা স্থানীয় দর্শনার্থীরা জানান পুরোহিত কাল সকালে আসবেন। এরপর ওই যুবক নাটমন্দিরের পিলারের আড়ালে নিজেকে লুকিয়ে মোবাইলে কথা বলতে থাকে ও সন্দেহজনক আচরণ করে। এক পর্যায়ে তার হতে থাকা ব্যাগটি মন্দিরের গেটের বাইরে থাকা তার সঙ্গীদের কাছে দিয়ে আবারো মন্দিরে ঢুকে পুরোহিতকে খোঁজ করে। পরে পুরোহিতকে না পেয়ে মন্দিরের বাইরে থাকা অন্য তিন যুবকের সঙ্গে তারা মন্দিরের পশ্চিম পাশের রাস্তা দিয়ে চলে যায়।

পুলিশ সুপার বলেন, ‘ঘটনা শোনার সঙ্গে সঙ্গে মন্দিরের ভেতর ও বাইরে লাগানো সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করি। তাতে দেখতে পাই সন্দেভাজন ওই যুবকসহ ৪ জন একটি রিকশা করে মন্দিরের সামনে নামছে। এ সময় মন্দিরের ভেতরে প্রবেশ করা যুবকের হাতে একটি ব্যাগ রয়েছে। যার মধ্যে চাপাতি জাতীয় ধারালো অস্ত্র ছিল বলে ধারনা করা হচ্ছে।’

তিনি জানান, এ ঘটনার পর সন্দেহভাজনদের সন্ধানে আটক করতে তিনিসহ পুলিশের সকল টিম রাতভর মাগুরার বিভিন্ন স্থানে অভিযানে নেমেছে। এ সময় ওই চারজনের সন্ধান না পেলেও বিভিন্ন মামলার ১০ আসামিকে আটক করা হয়েছে।

সিসি ক্যামেরায় ধারন করা সেই ভিডিও

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন