• আজ বুধবার, ৭ আশ্বিন, ১৪২৮ ৷ ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ৷

মোবাইল ফোনের মাধ্যমেই জানা যাবে মামলার সব বৃত্তান্ত


❏ মঙ্গলবার, জুলাই ১২, ২০১৬ Breaking News, ফিচার, স্পট লাইট

সময়ের কণ্ঠস্বর

বিচার ব্যবস্থায় ডিজিটালাইজেশন নিশ্চিতে করতে দেড়শ বছরের প্রাচীন ব্যবস্থা ভেঙ্গে আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তির সেবা চালুর প্রক্রিয়ায় এবার  দেশের বিচার ব্যবস্থায় ই-জুডিশিয়ারি ব্যবস্থা চালু হচ্ছে। এর মাধ্যমে বিচারপ্রার্থীরা ঘরে বসেই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানতে পারবেন মামলার বৃত্তান্ত।

সংবাদসংস্থা বাসস জানিয়েছে, ই-জুডিশিয়ারি কার্যকর হলে বিচারপ্রার্থীরা ঘরে বসেই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে মামলার গতি-প্রকৃতি ও রায় জানতে পারবেন। অন্যদিকে মামলার তথ্য সংরক্ষণের মাধ্যমে অত্যন্ত কম সময়ের ম‡ধ্য উচ্চ আদালত ও নিম্ন আদালতের মধ্যে বিচার সংশ্লিষ্টরা পারস্পারিক কার্যক্রম সম্পাদন করতে পারবেন। এছাড়াও পুরাতন মামলার রের্কড এবং সংশ্লিষ্ট রায় ডিজিটাল পদ্ধতিতে সংরক্ষণ করা হবে।

সুপ্রিমকোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার (প্রশাসন ও বিচার) মোঃ সাব্বির ফয়েজ জানান, ই-জুডিশিয়ারি ব্যবস্থা চালুর প্রথম পর্যায়ে দেশের ১০টি জেলাকে পাইলট প্রকল্পের আওতায় আনা হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে দেশের সবগুলো জেলাতেই এ ব্যবস্থা চালু করা হবে।

mobile-user ন্যায়বিচার নিশ্চিত, মামলা জট নিরসন ও বিচারপ্রার্থীদের দুর্ভোগ কমাতে এ উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। প্রকল্প প্রস্তাবনা অনুসারে ঢাকা, কুমিল্লা, চট্রগ্রাম, সিলেট, ব্রাক্ষণবাড়িয়া, গোপালগঞ্জ, নাটোর,যশোর, মৌলভীবাজার এবং রংপুর এ ১০ জেলায় পাইলট প্রকল্পের আওতায় আনা হচ্ছে। সুপ্রিমকোর্ট ও বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে।

তিনি জানান, আজ মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ই-জুডিশিয়ারি পাইলট প্রকল্প শীর্ষক প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে।

আইনজীবীরা জানায়, ‘ই-জুডিশিয়ারি’ ব্যবস্থা চালু হলে বিচার বিভাগে যুগান্তকারী পরিবর্তন আসবে। বিচারপ্রার্থীসহ বিচার সংশ্লিষ্ট সবাই এতে উপকৃত হবেন। প্রশাসনিক কার্যক্রমেও গতিশীলতা আরো বাড়ানো সম্ভব হবে। এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে মামলা ব্যবস্থাপনা, রের্কডরুম, লাইব্রেরিসহ সংশ্লিষ্ট সব কিছুতেই ডিজিটাল পদ্ধতির ব্যবহার শুরু হবে। এতে উচ্চ আদালত ও নিম্ন আদালতের মধ্যে দৈনন্দিন কার্যক্রম সম্পাদন আরো সহজতর হবে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন