• আজ ২০শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পাবনার সুজানগরে অধ্যক্ষের রুমে তালা : অপসারন দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ

১০:১২ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৪, ২০১৬ আলোচিত

আব্দুল লতিফ রঞ্জু, পাবনা প্রতিনিধি  পাবনার সুজানগরের দুলাই এলাকায় অবস্থিত ডা: জহুরুল কামাল ডিগ্রি (অনার্স) কলেজে বৃহস্পতিবার দুপুরে অধ্যক্ষের রুমে তালা ঝুলিয়ে অধ্যক্ষকে অবরুদ্ধ করে বিক্ষুব্ধ ছাত্ররা। পরে তারা অধ্যক্ষের অপসারন দাবিতে পাবনা-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করে। এতে করে প্রায় দুই ঘন্টা পাবনা-ঢাকা মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকে। ফলে ভয়াবহ যানজটের সৃষ্টি হয় ঐ মহাসড়কে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে যান চলাচল শুরু হয়।

pabnaপুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় ওই কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল লতিফ কলেজে ঢুকলে ছাত্ররা তার অফিস রুমে তালা ঝুলিয়ে অধ্যাক্ষকে অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে ছাত্ররা অধ্যক্ষের অপসারনের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ করে। ছাত্ররা অভিযোগ করে বলেন, অধ্যক্ষ আব্দুল লতিফ কলেজ সরকারি করনের কথা বলে শিক্ষক ও কর্মচারীদের নিকট থেকে প্রায় চল্লিশ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। কিন্তুু অধ্যক্ষ স্বপদে বহাল থাকতে পারবেনা বিধায় সরকারি করনের বিরোধিতা করে চুরান্ত তালিকা থেকে ডা: জহুরুল কামাল ডিগ্রি (অনার্স) কলেজকে বাদ দিয়েছেন। এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে শিক্ষক-কর্মচারি ও এলাকাবাসি ফুঁসে ঊঠেছে। দির্ঘদিন অধ্যক্ষ ও তার কতিপয় দোসর একই কলেজের শিক্ষক মাহাবুল কবির পলাশ, গোলাম মোহাম্মদ পিয়ার ও আব্দূল বাতেন ঢাকায় আত্মগোপনে থাকার পর বৃহস্পতিবার কলেজে আসলে ছাত্ররা অধ্যক্ষসহ তাদের অবরুদ্ধ করে এবং অধ্যক্ষে অপসারন অর্থ আত্মসাৎ কারি দূর্ণীতিবাজ শিক্ষকদের শাস্তির দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ করে। প্রায় দুই ঘন্টা ব্যাপি সড়ক অবরোধের কারনে দির্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়। এতে ঢাকাগামি যাত্রীদের দূর্ভোগে পরতে হয়।

পরে সুজানগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাখাওয়াত হোসেন ও থানার ওসি নূর ইসলাম ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি শান্ত করে অধ্যক্ষসহ অর্থ কেলেংকারীর সাথে জড়িত শিক্ষদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিলে ছাত্ররা সড়ক অবরোধ তুলে নেয়। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কলেজ ক্যাপ্পাসে এসে অধ্যক্ষসহ অন্য শিক্ষকদের অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্ত করে।