• আজ ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

খানসামায় আউশ ধান রোপণে ব্যস্ত কৃষকরা


index452


মোহাম্মদ সাকিব চৌধুরী, খানসামা (দিনাজপুর) থেকে : ধান বাংলােদশের অন্যতম অর্থকরী ফসল। বাংলাদেশে ইরি-বোরো,আউশ,আমন ধান সাধারণতভাবে চাষ করেন কৃষকরা । এই বছরে খানসামা উপজেলায় আউশ ধান চাষ ব্যাপকহারে করছেন কৃষকরা। খানসামা উপজেলার ৬ টি ইউনিয়নে প্রায় প্রত্যেকটি এলাকায় আমন ধান রোপণে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন উক্ত উপজেলার কৃষকরা।  খানসামা উপজেলার পাকেরহাট এলাকার কর্মরত দুই দিনমজুর সায়েদ আলী তার জমিতে আউশ ধান রোপণ করছেন। সায়েদ আলী জানান,ইরি-বোরো ধান কাটাই এর প্রায় ৮০ দিন পর এই আবাদী জমিতে  আবার আউশ ধান রোপণ করছেন। গত বছরে প্রতি বিঘাতে ১৮-২০ মণ হারে ধান পেয়েছেন। আল্লাহর রহমতে আবহাওয়া প্রতিকূল অবস্থায় থাকলে আমন ধানের বাম্পার ফলনের অপার সম্ভাবনা রয়েছে বলে তিনি জানান। এই আউশ ধান চাষে খানসামা কৃষি সম্প্রাসারণ অধিদপ্তরে কর্মরত ব্লক সুপারভাইজারগণ নিয়মিতভাবে কৃষকদের পরামর্শ ও সার্বিকভাবে সহযোগিতা করছেন বলে জানা যায়।এছাড়াও খানসামা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ এজামুল হক নিয়মিত আউশ ধান রোপনের বিষয়ে মাঠে গিয়ে কৃষকদের পরামর্শ দিচ্ছেন বলে জানা যায়।

উল্লেখ্য এ বছর, খানসামা উপজেলা কৃষি সম্পসারন অধিদপ্তরের আয়োজনে গত ১২ এপ্রিল সোমবার সকাল ১১টার সময় উপজেলা অফিস চত্বরে উপজেলার বেশ কিছু কৃষকের মাঝে খরিপ-১/২০১৬-১৭ আউশ মৌসুমে আউশ ধান চাষে প্রনোদনা প্রদানের লে ুদ্র ও প্রান্তিক চাষীদের মাঝে বিনা মূল্যে বীজ এবং রাসায়নিক সার বিতরন করা হয়। কৃষকগণ উফশী ধান চাষে বিঘা প্রতি (৩৩শতক) এর জন্য পাবেন বীজ ৫ কেজি, ইউরিয়া ২০ কেজি, ডিএপি ১০ কেজি ও এমওপি ১০ কেজি এবং রেনিকা ধানেরেে ত্র বিঘা প্রতি বীজ ১০ কেজি ও এমওপি ১০ কেজি। সেচের জন্য উফশীরেে ত্র মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যসে ৪’শ টাকা ও রেনিকাত্রে সেচ ও অগাছা দমনের জন্য ৮’শ টাকা হারে সহায়তা পাবেন কৃষকেরা।

◷ ১:০৬ অপরাহ্ন ৷ শুক্রবার, জুলাই ১৫, ২০১৬ দেশের খবর, মফস্বল সংবাদ