সংবাদ শিরোনাম
‘আমি এমন একজনের ভোট পেয়েছি, যার নাম ডোনাল্ড ট্রাম্প’ | বার্সেলোনাকে হেসে খেলে হারিয়ে রিয়ালের এল ক্লাসিকো জয় | ‘আমি ক্ষমতায় থাকি বা না থাকি, বিরোধী দলের নেতারা ক্ষমতায় ফিরবে না’- ইমরান | বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরলো প্রেমিকা! | গৃহকর্মী সাদিয়ার বাড়িতে শোকের মাতম, জড়িতদের ফাঁসির দাবি | তেঁতুলিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন ২ জন | পঙ্গপালের আক্রমনে দিশেহারা ইথিওপিয়া, খাদ্য সংকট চরমে! | ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের মানসিক পরীক্ষা করা দরকার: এরদোগান | চুল কেটে সিনেমা থেকে বাদ পড়লেন বাপ্পি চৌধুরী! | মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ: অভিযুক্ত মাদ্রাসা সুপারকে আটক করেছে জনতা |
  • আজ ৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনা মিমাংসা করতে ব্যর্থ হয়ে ২৪ ঘন্টা পর লিখিত অভিযোগ নিল আশুলিয়া থানা পুলিশ!

৬:১২ অপরাহ্ন | শুক্রবার, জুলাই ১৫, ২০১৬ ঢাকা, দেশের খবর

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভারঃ আশুলিয়ায় আট বছরের এক শিশুকে ধর্ষনের চেষ্টা চালিয়েছে মানিক মিয়া (৩২) নামের এক পোশাক শ্রমিক। এই ঘটনায় শিশুটির পরিবার থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করতে গেলে আশুলিয়া থানার এক-পরিদর্শক অভিযোগ গ্রহন না করে বিষয়টি মিমাংসা করার চেষ্টা চালিয়েছে। পরে মিমাংসা করতে ব্যার্থ হয়ে পুলিশের ওই উপ-পরিদর্শক প্রায় ২৪ ঘন্টা পর একটি লিখিত অভিযোগ নেয়।

অভিযুুক্ত মানিক মিয়া যশোর জেলার কতোয়ালী থানার ধর্মতলা এলাকার অজিত মিয়ার ছেলে। সে আশুলিয়ার নয়ারহাট এলাকার নুর জাহান ম্যানশনের অপরেটর বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার আশুলিয়ার ইউনিক এলাকার রিয়াজ উদ্দিনের ভাড়া বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার ২৪ ঘন্টা পর শিশুটির পরিবারের পক্ষ থেকে শুক্রবার দুপুরে ধর্ষণ চেষ্টার একটি লিখিত অভিযোগ নেয় আশুলিয়া থানা পুলিশ।asuliyaশিশুটির বাবা রি·চালক লাল মিয়া বলেন, বৃহস্পতিবার সকালে তিনি ও তার পোশাক শ্রমিক স্ত্রী তাদের আট বছরের শিশু কন্যাকে বাসায় রেখে কাজের উদ্দেশ্যে বাসা থেকে বের হয়ে যায়। এসময় তাদের ভাড়া বাড়ির অপর একটি কক্ষে থাকা মানিক মিয়া নামের এক পোশাক শ্রমিক কৌশলে তাদের শিশু কন্যাকে নিজ কক্ষে ডেকে নিয়ে গিয়ে ধর্ষনের চেষ্টা চালায়। বিষয়টি বাসার অন্যান্য টের পেয়ে মানিককে আটক করে এবং থানা পুলিশকে খবর দেয়। স্থানীয়দের কাছ থেকে ধর্ষণ চেষ্টা খবর পেয়ে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল থেকে অভিযুক্ত মানিক মিয়াকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এরপর থেকেই তিনি লিখিত অভিযোগ দায়ের করতে মানা করেন। এবং মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে বিষয়টি মিমাংসা করার প্রস্তাবও দেন। পরে অভিযুক্ত যুবকের পরিবার থেকে কেউ পুলিশের ওই কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ না করলে শুক্রবার দুপুরে ওই পুলিশ কর্মকর্তা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করতে বলেন বলেও জানান শিশুটির বাবা।

শিশুটির পোশাক শ্রমিক মা ইসমত আরা আরও জানান, ঘটনার পর থেকেই তিনি ও তার স্বামী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়ার জন্য অনেক চেষ্টা করেছেন। কিন্তু ঘটনাস্থল যাওয়া পুলিশ কর্মকর্তা তাদের কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ না নিয়ে বারে বারে তাদের বিষয়টি টাকার বিনিময়ে মিমাংসা করার প্রস্তাব দেন বলেও তিনিও জানান।

এ বিষয়ে জানতে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রথমে ধর্ষন চেষ্টা বা ধর্ষনের বিষয়টি অস্বীকার করে জানান, দুই পরিবারের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মারামারি হয়েছে। দুই পরিবারের সদস্যদেরই থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এবং তাদের উপস্থিতিতে বিষয়টি মিমাংসা করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

মারামারির ঘটনায় কেন ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ নেওয়া হলো জানতে চাইলে পুলিশের এই কর্মকর্তা কৌশলে থানা প্রাঙ্গণ থেকে পালিয়ে যায়। পরে বিষয়টি সম্পর্কে আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিনুল কাদিরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় আমরা একটি লিখিত অভিযোগ নিচ্ছি শিশুটির পরিবারের কাছ থেকে। এবং অভিযুক্ত যুবকও আটক রয়েছে বলে জানান তিনি।