দা আল্টিমেট স্যাডেলসোর রাইডারজ…


13669743_884620515014773_3192716385535137335_n copy



আজিজুলহাকিম বাদল, সময়ের কণ্ঠস্বরঃ

মোটর সাইকেল মানেই এডভ্যানচার। দূরে কোথাও হারিয়ে যাওয়া। নতুন করে নিজেকে খুঁজে পাওয়ার সংকল্পবদ্ধ প্রয়াস। শেষ না হওয়া পথের শেষটা দেখবার দূরন্ত চেষ্টা। আর সেই চেষ্টার সফলতা যখন রেকর্ড সৃষ্টিকারী কোনো উদ্দীপনা যোগ করে তখন তা বলা বাহুল্য যে কতটা গৌরবের।

ঠিক তেমনিভাবে ছবিতে যে চারজন মানুষকে আপনারা দেখতে পাচ্ছেন তারাই সেই কল্পনাকে বাস্তবে রুপ দেওয়া মোটর সাইকেল চালক। যাদের উপাধি আমরা দিয়েছি “The Ultimate SaddleSore Riders”।

ইউ.এস.-এর আয়রন বাট এ্যাসোসিয়েশনের অনেকগুলো টাস্কের মধ্যে একটি হলো স্যাডেল সোর বা এস.এস.। এই টাস্ক সম্পন্ন করার জন্য একজন বাইকারকে বাইকে করে ২৪ ঘন্টায় ১০০০ মাইল বা ১৬১০ কি.মি. পাড়ি দিতে হয়। সাথে প্রমাণ স্বরূপ এটিএম বুথের রিসিট, টোল প্লাজার রিসিট, ছবি, স্বাক্ষী উপস্থাপন করতে হয়।

এই টাস্কটি সফল ভাবে বাংলাদেশে সর্ব প্রথম সম্পন্ন করেছেন Abdul Momen Rohit, ২০১৪ সালের ৭ই অক্টোবর। তিনি ২৪ ঘন্টায় ১৬২২ কি.মি. পথ অতিক্রম করেন। ঠিক একই সময় তার সাথে Mohammad Masum Al Mizan-ও রাইডে অংশ নেন। কিন্তু ২৫ মিনিট বেশি লেগে যায় তার।

এর কিছু দিন পর আরো একজন মোটর সাইকেল চালক Abu Saeed চেষ্টা করেন একই পথে আগাবার। তিনি ২৩ ঘন্টায় ১৫০০ কিমি অতিক্রম করলেও বাকিটা করতে পারেননি রাস্তার দুরবস্থার জন্য।

“ট্যুর দা স্পিরীট” এর সংগঠক Samiul Azad Shishir বেশ কয়েক মাস আগে ২৫ দিনে মোটরসাইকেলে চড়ে বাংলাদেশের ৬৪ জেলা ভ্রমণ সম্পন্ন করেছেন।

গত ৭ই জুলাই ২০১৬ তারিখ রাত ৯ টা ২১ মিনিটে Mohammad Masum Al Mizan, Abu Saeed এবং Samiul Azad Shishir যাত্রাবাড়ি ফ্লাই ওভার থেকে যাত্রা শুরু করেন। তুমুল বৃষ্টি থাকা সত্ত্বেও মাত্র ৩ ঘন্টা ১৫ মিনিটে পৌছে যান চট্টগ্রাম-এ। সেখান থেকে আবার ঢাকা হয়ে চলে যান ময়মনসিংহ-এ। তারপর যমুনা সেতু হয়ে বাংলাবান্ধা জিরো পয়েন্ট। সেখান থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেন এবং ঢাকা আসার আগেই তাদের কাংখিত মাইল ফলক স্পর্শ করেন ২৩ ঘন্টা ২০ মিনিট সময়ে। ২৪ ঘন্টায় মোট ১৬৩৭ কি.মি. অতিক্রম করেন তারা।

এই রকম রাইড দিতে প্রয়োজন মোটর সাইকেল চালকের সাহস, বুদ্ধিমত্তা, ধৈর্য্য, হার না মানা মনোভাব, দক্ষতা, আত্মবিশ্বাস এবং অবশ্যই সৃষ্টিকর্তার অনুগ্রহ। এই চারজন “The Ultimate SaddleSore Riders” এর এই মিশনে সংগী হওয়া মোটর সাইকেল গুলো হলো…

Abdul Momen Rohit – Yamaha Fazer
Mohammad Masum Al Mizan – Yamaha R15 V2
Abu Saeed – Honda CG125
Samiul Azad Shishir – Lifan KPR

সম্পাদনাঃ সজীব মনসূর

◷ ১:২০ অপরাহ্ন ৷ শনিবার, জুলাই ১৬, ২০১৬ প্রজন্মের ভাবনা, স্পট লাইট