লাউচাষে দূর্গাপুর উপজেলার ২০ গ্রামের কৃষক লাভবান

১:০২ অপরাহ্ণ | শনিবার, জুলাই ১৬, ২০১৬ অর্থনীতি

ওবায়দুল ইসলাম রবি, রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার ৯৫ হেক্টর জমিতে লাউ চাষ হয়েছে। প্রতি হেক্টর জমিতে ২৪ দশমিক ৯০ মেট্রিক টন হারে লাউয়ের উৎপাদন হচ্ছে। উপজেলা অন্তত ২ হাজার ৩৬৫ মেট্রিক লাউ উৎপাদন হবে এবং প্রতিদিন অন্তত ১৫-২০ ট্রাক লাউ বিভিন্ন জেলায় রপ্তানি করা হচ্ছে বলে জানায় কৃষকরা।

lau-chas

উপজেলার বাজু খলশি গ্রামের মোঃ বাবু জানান, তিনি এবার প্রায় ১৫ কাঠা জমিতে লাউ চাষ করেছেন। গড়ে প্রতিদিন তার জমি থেকে ১৫০টি করে লাউ সংগ্রহ হচ্ছে। যার দাম প্রায় ১৮০০ টাকা। তিনি ওই জমি থেকে মোট সাড়ে তিন মাস থেকে চার মাস পর্যন্ত লাউ সংগ্রহ করতে পারবেন। সব মিলিয়ে তার জমি থেকে ১২-১৪ হারটি লাউ সংগ্রহ করা যাবে। যা বিক্রি করে তিনি অন্তত ৪০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। সাফল্যের কারনে উপজেলার, বখতিয়ারপুর, কানপাড়া, বাজুখলশি, জয়নগর সহ অন্তত ২০টি গ্রামের মানুষ মেতে উঠেছেন লাউ চাষে। বাণিজ্যিকভাবে এই লাউ চাষ করেই শত কৃষকের ভাগ্য বদলাচ্ছে গত কয়েক বছর ধরে।

এ বিষয়ে কৃষকরা বলেন, ‘এক বিঘা জমিতে লাউচাষ করতে বাঁশের মাচাম, বীজ, সার সহ শ্রমিক খরচ মিলে বড় জোর খরচ হবে ১০-১২ হাজার টাকা। আর লাউয়ের দাম পাওয়া গেলে অন্তত ৫০ হাজার টাকা আয় হবে। সে ক্ষেত্রে এক বিঘা জমি থেকেই একজন কৃষকের আয় হচ্ছে অন্তত ৪০ হাজার টাকা। এ কারণে দুর্গাপুরের বিপুল পরিমাণ কৃষক গত কয়েক বছর ধরে লাউ চাষে ঝুঁকে পড়েছেন। ফলে প্রতি বছরই লাউচাষও বাড়ছে।’ ফাল্গুন মাস থেকে শুরু হয় এ উপজেলায় লাউ চাষ। যা চলে একেবারে আশ্বিন মাস পর্যন্ত। শীত শুরু হলে লাউয়ের চাহিদা কমে যায়। তখন লাউচাষও বন্ধ হয়ে যায়। তবে এবার বর্ষায় রাউগাছের অনেকটা ক্ষতিও হয়েছে বলে জানান ওই চাষি।

লাউচাষে সাফ্যলের বিষয়ে দুর্গাপুর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা পিন্টু মিঞা সাংবাদদিকদের জানান, বারি-১ জাতের লাউচাষ হয়েছে ৩০ হেক্টর জমিতে, বারি-২ জাতের ৪০ হেক্টর জমিতে এবং স্থানীয় উন্নত জাতের লাউ চাষ হয়েছে প্রায় ২৫ হেক্টর জমিতে। যা গত বছর চাষ হয়েছিল ৫৫ হেক্টর, এবার তা বৃদ্ধি হয়ে ৯৫ হেক্টর জমিতে লাউ চাষ করেছে স্থানীয় কৃষক।