সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘জনগণকে পাশে নিয়ে কাজ করবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী’

১:০০ অপরাহ্ন | রবিবার, জুলাই ১৭, ২০১৬ Breaking News, জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর- সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় যার যার অবস্থানে থেকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে পুলিশের আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক বলেন, আমাদের যার যার অবস্থান থেকে এই সঙ্কট মোকাবেলা করা উচিত। জনগণকে পাশে নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কাজ করবে। সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স।

Shahidulhaq20160702152218

ফাইল ফটো

রবিবার সকালে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের নিয়ে বৈঠককালে স্বাগত বক্তব্যে আইজিপি এসব কথা বলেন।স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত আছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

আরও উপস্থিত আছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) একেএম শহীদুল হক, র‌্যাব মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ, ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া প্রমুখ।

সভার শুরুতে পুলিশের কাউন্টার টেরিরিজম ইউনিটের প্রধান ও অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের (উত্তর) সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকও সভায় বক্তব্য দেন।

আইজিপি বলেন, কে সন্ত্রাস করল, কে কোন দলের, কে কোন মতের সেটা বড় কথা না। সন্ত্রাসী এবং জঙ্গিবাদীদের সন্ত্রাসী হিসেবে চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে চাই, আপনাদের সহযোগিতা দরকার।

তরুণদের সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদে জড়িত করা হচ্ছে মন্তব্য করে আইজিপি বলেন, কোরআনের কিছু সুরার খণ্ডিত অংশ বিকৃত করে জিহাদের নামে বেহেস্তে যেতে পারবে বলে তরুণদের বিভ্রান্ত করছে।

তিনি বলেন, তারা মানবতার বিরুদ্ধে হামলা করছে। এসব হামলা করে দেশে ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টা করেছে। দেশের উন্নয়ন, স্থিতিশীলতা ও অগ্রগতিকে ধ্বংস করার জন্য ষড়যন্ত্র করেছে।

আগে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের মধ্যে এ প্রবণতা দেখা গেলেও এখন ‘নামী-দামী’ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া ছেলেরাও জঙ্গি কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ছে বলে মন্তব্য করেন পুলিশ প্রধান।

এ বিষয়ে পরিবার ও শিক্ষকদের সহযোগিতা চেয়ে তিনি বলেন, সন্তানরা যেন বিপথে না যায় তা দেখার দায়িত্ব পরিবারের। আমি মনে করি শিক্ষকদেরও দায়দায়িত্ব আছে নজরদারি করার। সামাজিক দায়িত্ব থেকে মোকাবেলা করা উচিত।