• আজ রবিবার, ৪ আশ্বিন, ১৪২৮ ৷ ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ৷

নীলফামারীতে পুলিশের মামলায় ইউপি চেয়ারম্যানসহ ২০ জন আসামী, গ্রেপ্তার আতঙ্কে পুরুষশুন্য গ্রাম


❏ রবিবার, জুলাই ১৭, ২০১৬ দেশের খবর, রংপুর

index520


মোঃ মহিবুল্লাহ্ আকাশ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট– নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার চাঁদখানা ইউনিয়নের চরকবন্দ গ্রামে পুলিশ- গ্রামবাসীর সংঘর্ষের ঘটনায় চাদঁখানা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানসহ ২০ জনকে  আসামী করে থানায় মামলা হয়েছে। কিশোরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক রায়হান আলী এই মামলার বাদি। এছাড়া মামলাটিতে গ্রামের আরো অজ্ঞাতনামা দুইশ’ জনকে আসামী করা হয়েছে। এতে গ্রেপ্তার আতঙ্কে পুরো গ্রাম হয়ে পড়েছে পুরুষশুন্য।

কিশোরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আশরাফুজ্জামান জানান, গত শুক্রবার নজু মামুদের পৈত্রিক জমিতে নর্থ প্লোট্রি ফার্মের প্রাচীর নির্মাণ করার সময় গ্রামবাসী বাধাঁ দেয়। এসময় বাঁধা উপক্ষো করে ফার্মের লোকজন জোরপূর্বক প্রাচীর নির্মাণ করতে থাকলে সেখানে কর্তব্যরত পুলিশের সাথে গ্রামবাসীর সংঘর্ষ বাঁধে। এ সময় গ্রামবাসীর ইট পাটকেলের আঘাতে আহত হয় তিন পুলিশ সদস্য। পরে পুলিশ ও গ্রামবাসীর মধ্যে পাল্টা পাল্টি মারপিটে ওই গ্রামের অর্ধশতাধিক নারী-পুরুষ আহত হয়।

শনিবার (১৭ জুলাই) পুলিশের দায়ের করা মামলায় চাঁদখানা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাফিজার রহমান হাফিসহ নামীয় ২০জনসহ অজ্ঞাতনামা দুইশ’জনকে আসামী করা হয়েছে।
চেয়ারম্যান হাফিজার রহমান হাফি জানান, আমিসহ গ্রামের দুই শতাধীক মানুষকে আসামী করে পুলিশ বাদি হয়ে যে মামলাটি করেছে তা একতরফা। পুলিশের পিটুনিতে এতগুলো মানুষ আহত হলো তার কোন বিচার নেই। তাই গ্রেপ্তার আতঙ্কে গ্রামটি পুরুষশুন্য হয়ে পড়ায় মহিলা ও শিশুরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন