তুরস্কে অভ্যুত্থান চেষ্টায় ৮,০০০ পুলিশ বরখাস্ত

৫:৪৯ অপরাহ্ন | সোমবার, জুলাই ১৮, ২০১৬ আন্তর্জাতিক, স্পট লাইট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- তুরস্কে ব্যর্থ অভ্যুত্থান চেষ্টার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে অন্তত ৮,০০০ পুলিশকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এছাড়াও, জেনারেল পদবীর কর্মকর্তাসহ বিচার ও সামরিক বিভাগের অন্তত ৬,০০০ সদস্যকে আটক করা হয়েছে।

সোমবার দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে বিবিসি এ তথ্য জানিয়েছে। অভ্যুত্থান চেষ্টার সঙ্গে জড়িতদের কঠোর শাস্তির অঙ্গীকার করেছেন প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান।turusএরদোগান ইস্তাম্বুলে নিজের ঘনিষ্ঠ রাজনৈতিক মিত্র ও তার কিশোর পুত্রের দাফন অনুষ্ঠানে বক্তৃতায় বলেন, ‘সব রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান থেকে আমরা ঝেঁটিয়ে ‘ভাইরাস’ বিদায় করার কাজ চালিয়ে যাব। দুর্ভাগ্যবশত, রাষ্ট্রের রন্ধ্রে রন্ধ্রে এই ভাইরাস ঢুকে গেছে। তার বিস্তারও ঘটছে ঠিক ক্যান্সারের মতো।’

এই বক্তৃতা দেওয়ার সময় এরদোগান কান্নায় ভেঙে পড়েন। ‘সংহতি ও ঐক্যবদ্ধভাবে’ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেন তিনি। প্রেসিডেন্ট তার বক্তৃতায় অভ্যুত্থান ষড়যন্ত্রের সঙ্গে ফেতুল্লাহ গুলেন জড়িত রয়েছেন বলে আবারো অভিযোগ করেন। যুক্তরাষ্ট্র থেকে এনে তার বিচারের কথাও বলেন তিনি।

এদিকে, ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক প্রধান বলেছেন, তুরস্কে আইনের শাসনের সুরক্ষা দরকার। শুক্রবার রাতে তুরস্কে সেনাবাহিনীর একটি অংশ অভ্যুত্থানের চেষ্টা করে। কিন্তু প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগানের আহ্বানে সাড়া দিয়ে রাজপথে নেমে আসে লাখো লাখো গণতন্ত্রপন্থী জনগণ। তাদের সঙ্গে যোগ দেন গণতন্ত্রপন্থী সেনা ও পুলিশ সদস্যরা। ফলে ব্যর্থ হয় অভ্যুত্থানের চেষ্টা।

শনিবার বিকেলে আনুষ্ঠানিকভাবে অভ্যুত্থানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়। এ ঘটনায় অন্তত ২৬৫ জন নিহত হয়েছেন যাদের মধ্যে ১৬১ জন গণতন্ত্রপন্থী নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য ও বেসামরিক নাগরিক। নিহত বাকিরা অভ্যুত্থানকারী। আহত হয়েছেন ১ হাজার ৪৪০ জন।