• আজ বৃহস্পতিবার, ৮ আশ্বিন, ১৪২৮ ৷ ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ৷

আইএসের স্কুলে শাস্তির যেসব বিধান


❏ মঙ্গলবার, জুলাই ১৯, ২০১৬ আন্তর্জাতিক

image-26490

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সিরিয়ার বিভিন্ন জায়গা থেকে তথাকথিত ইসলামিক স্টেটের (আইএস) জঙ্গিদের পিছু হটার সঙ্গে সঙ্গে প্রকাশিত হচ্ছে তাদের শাসন ব্যবস্থার নমুনা। দেশটির উত্তরাঞ্চল থেকে জঙ্গিরা পালিয়ে যাওয়ার পর সেখানের একটি পরিত্যক্ত স্কুল ভবন ঘুরে প্রতিবেদন তৈরি করেছে বিবিসি।

কুর্দি যোদ্ধাদের হামলায় মানবজ প্রদেশ থেকে পালিয়ে যায় আইএস যোদ্ধারা। কিছুদিন আগেও এই স্কুলটি চালাতো আইএস। শিল্পকলা বা আর্টস এন্ড ক্রাফটসের ক্লাসে দেখা যায় সেখানে মেঝেতে পড়ে আছে কাগজ দিয়ে তৈরি কিছু মানব দেহ। এগুলোর আকারও মানুষের সমান।

ধারণা করা হচ্ছে, এর উদ্দেশ্য আইএসের ওপর বিমান হামলার সময় চালকদের বিভ্রান্ত করা। যাতে এসবের ওপর বোমা ফেলা হয়। স্কুলের রান্নাঘরের দরজায় রুশ ভাষায় লেখা- কিচেন। এই স্কুলে রুশ ভাষায় আরও অনেক লেখা রয়েছে। যা থেকে ধারণা করা যায়, জঙ্গিদের অনেকে হয়তো চেচেন। ফরাসি এবং ইংরেজি ভাষাতেও কিছু নাম লেখা। হয়তো জঙ্গিরা ইংরেজি ও ফরাসি ভাষাভাষী দেশ থেকে সিরিয়ায় এসে আইএসে যোগ দিয়েছে। এক জায়গায় আরবিতে স্প্যানিশ ফুটবল ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের নামও লেখা রয়েছে। আরেকটি শ্রেণি কক্ষে পদার্থবিদ্যা পড়ানো হতো। সাদা বোর্ডে লেখা ছিলো গণিতের কিছু সূত্র ও সমীকরণ।

স্কুলে ফেলে যাওয়া যেসব বই পাওয়া গেছে সেগুলোর বেশিরভাগই আরবিতে লেখা কোরআন সংক্রান্ত ধর্মীয় বই। পাওয়া গেছে সামরিক শিক্ষার পুস্তকও। বোমা হামলার সময় কোথায় কিভাবে আশ্রয় নিতে হবে তার বর্ণনা রয়েছে সেখানে।

স্কুলে একটি বড় আকারের পোস্টার পাওয়া গেছে। সেখানে কি ধরনের অপরাধের জন্যে কি শাস্তি তার বিধান লেখা রয়েছে। বলা হয়েছে, কেউ যদি সমকামী হয় তাহলে তাকে ভবনের উপর থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলা হবে। চুরি করলে হাত কাটা হবে। কেউ আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে তাহলে তার শাস্তি হবে গলা কেটে মৃতদেহ প্রকাশ্যে ঝুলিয়ে রাখা।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন