সংবাদ শিরোনাম

হাসপাতালের ওষুধ পাচারের ছবি তোলায় ১০ সংবাদকর্মী তালাবদ্ধবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ স্বাধীনতার প্রকৃত ঘোষণা: প্রধানমন্ত্রীনির্মাণকাজ শেষের আগেই ‘মডেল মসজিদের’ বিভিন্ন স্থানে ফাটলআহসানউল্লাহ মাস্টারসহ ১০ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান পাচ্ছেন স্বাধীনতা পুরস্কারঐতিহাসিক ৭ মার্চের সুবর্ণ জয়ন্তী: টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে মানুষের ঢলচট্টগ্রাম কারাগারে হাজতি নিখোঁজ, জেলার-ডেপুটি জেলার প্রত্যাহারদেবীগঞ্জে ট্রাক্টরের চাপায় মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যুকরোনার এক বছর: মৃত্যু ৮৪৬২, শনাক্ত সাড়ে ৫ লাখটাঙ্গাইলে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উদযাপনমোবাইল ইন্টারনেট গতিতে উগান্ডারও পেছনে বাংলাদেশ

  • আজ ২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কালকিনিতে প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে উপবৃত্তির টাকা প্রদানে অনিয়মের অভিযোগ

১:৩৮ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, জুলাই ১৯, ২০১৬ ঢাকা, দেশের খবর

এইচ এম মিলন, কালকিনি প্রতিনিধি: মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার ৩৬নং নবগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা হালাদার রানী বালার বিরুদ্ধে ছাত্র-ছাত্রীদের উপবৃত্তির টাকা প্রদানে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। আর এতে করে ওই বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবকরা চড়ম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

oviman

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, ৩৬নং নবগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উপবৃত্তি প্রাপ্ত ৩৬৪ জন ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে ১২শ টাকা করে দেয়ার কথা থাকলেও প্রধান শিক্ষিকা হালদার রানী বালা অনিয়মের আশ্রায় নিয়ে ৬শ টাকা করে প্রদান করেন। এবং বাকি টাকা তিনি আত্মসাৎ করেন। এদিকে অনিয়মের ব্যাপারটি জানতে পেরে ছাত্র-ছাত্রীদের অভিবাবকরা ডিজি, জেলা প্রশাসক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এ বিষয় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী অন্যনা গুপ্ত, শুভ ও ঝুমা জানায়, আমরা উপবৃত্তির টাকা ১২শ করে না পেয়ে ৬শ টাকা করে পেয়েছি।

এ ব্যাপারে গোপাল মন্ডল, রবি শংকর বাড়ৈ ও অশিম গুপ্ত সহ শতাধিক শিক্ষার্থীদের অভিবাবক অভিযোগ করে বলেন, প্রধান শিক্ষিকা হালদার রানী বালা আমাদের সন্তাদের উপবৃত্তির অর্ধেক টাকা দিয়ে বাকি টাকা আত্মসাৎ করেছেন। আমার এই দুনীতিবাজ শিক্ষিকার অপসারনের দাবি জানাই।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষিকা হালদার রানী বালা সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, এ উপবৃত্তির টাকা আমি প্রদান করিনি আমার স্যারে প্রদান করেছেন। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।