• আজ ১১ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শরীয়তপুর পৌরসভার এমজিএসপির প্রকল্প কাজের অনিয়মের অভিযোগ

৪:৫৭ অপরাহ্ন | বুধবার, জুলাই ২০, ২০১৬ ঢাকা, দেশের খবর

নয়ন দাস, শরীয়তপুর প্রতিনিধি: শরীয়তপুর পৌরসভার এমজিএসপির প্রকল্পের কাজের ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমজিএসপির প্রকল্পের অধিনে পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের নীলকান্দি সড়কে নাম মাত্র কাজ করা হয়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

rasta

৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সঞ্জিব নাগ এমজিএসপির প্রকল্পের অধিনে নীলকান্দি থেকে গুচ্ছগ্রাম যাওয়ার প্রায় ৩ কিঃ মিঃ রাস্তার জন্য ৭ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। কিন্তু শরীয়তপুর পৌরসভার কিছু অসাধু কর্মকর্তার সহযোগিতায় নাম মাত্র রাস্তার কাজ করেছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

সরোজমিন ঘুরে দেখা যায়, শরীয়তপুর পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের নীলকান্দি থেকে গুচ্ছ গ্রাম সড়কে কাজ করছেন স্থানীয় কাউন্সিলর সঞ্জিব নাগ। এমজিএসপির প্রকল্পের মাত্র ৩ কিঃ মিঃ রাস্তার জন্য ৭ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হলেও নাম মাত্র কাজ করা হয়েছে। রাস্তাটি ৮ ফুট থাকলেও কিছু জায়গায় ৪ ফুট থেকে ৬ ফুট করা হয়েছে। রাস্তায় নিন্ম মানের সামগ্রি ব্যবহার করায় কাজ শেষ হতে না হতেই সড়কের কিছু কিছু জায়গায় এখনি ভেঙ্গে পড়েছে।

৯নং ওয়ার্ড বাসিন্দা আক্তার হোসেন (৫০) অভিযোগ করে বলেন, আমরা কখনো ভাবতে পারিনি আমাদের ওয়ার্ড কাউন্সিলর সঞ্জিব নাগ এই ধরনের নিন্ম মানের কাজ করবে। মাত্র ৩ কিঃ মিঃ রাস্তার জন্য এতো টাকা বরাদ্দ দেয়া হলো কিন্তু কোন লাভ হলো না। আমাদের আগের রাস্তাইতো ভাল ছিল। একই ওয়ার্ডের সাইফুল মুন্সি (৪০) জানান, আমার বাড়ির সামনে দিয়ে ৮ ফুটের রাস্তা ৪ ফুট করা হয়েছে। আমি পৌর মেয়রকে বিষয়টি জানিয়েছি। তিনি আমাকে রাস্তার কাজ বন্ধ করে দিতে বলেছেন।

এ বিষয়ে ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সঞ্জিব নাগ বলেন, আমার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ ভিত্তিহীন। এলাকার কিছু ছেলে আমার কাছে টাকা চেয়েছিল। আমি টাকা না দেয়ায় তারা এ ধরনের অভিযোগ করছে বলে তিনি দ্রুত চলে যান। এ ব্যপারে শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি। স্থানীয়দের বলেছি কাজের মান খারাপ হলে কাজ বন্ধ করে দাও। যদি কাজের মান খারাপ হয়ে থাকে তা হলে এমজিএসপি প্রকল্পের প্রকৌশলী রাস্তার কাজ দেখে বিল করবেন।

এমজিএসপি প্রকল্পের শরীয়তপুর পৌরসভার প্রকৌশলী কামাল উদ্দিনের কাছে রাস্তার কাজ সর্ম্পকে জানতে চাইলে তিনি কথা কাটিয়ে শরীয়তপুর পৌরসভার প্রকৌশলী লক্ষি কান্ত হালদারের সাথে যোগাযোগ করতে বলেন। শরীয়তপুর পৌরসভার প্রকৌশলী লক্ষি কান্ত হালদারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার অফিস সহকারীদের ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে ব্যাবস্থা নেবে বলে জানান।

বাংলাদের সরকার প্রতিটি পৌরসভাকে ডিজিটাল পৌরসভা করা লক্ষে বিশ্ব ব্যাংকে অধীনে এমজিএসপি প্রকল্প নামে একটি প্রজেক্টের মাধ্যমে উন্নয়ন মূলক কাজ করছেন। কিন্তু এমজিএসপি সহ পৌরসভার কিছু অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজসে সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড নামে মাত্র হবে, না সঠিক ভাবে কাজ হবে। এই নিয়ে জনমনে প্রশ্ন উঠেছে।

এসিল্যান্ডের যোগদান সালথায় নবাগত এসিল্যান্ডের যোগদান

সোমবার, অক্টোবর ২৬, ২০২০