ভারতে মাতৃদুগ্ধের ‘এটিএম’ !


❏ শুক্রবার, জুলাই ২২, ২০১৬ চিত্র বিচিত্র

breast-milk-atm


চিত্র-বিচিত্র ডেস্ক- এটার নামও এটিএম, তবে এখানে টাকা পাওয়া যায় না। এই বিশেষ এটিএমের পুরো নাম ‘আমুধম থাইপ্পল মাইয়াম’।

তামিল ভাষার এই শব্দত্রয়ের অর্থ মাতৃদুগ্ধের কেন্দ্র।

ভারতের একটি হাসপাতালে মাতৃদুগ্ধের ‘এটিএম’ চালু হয়েছে সম্প্রতি। সুস্থ দাতা মায়েদের কাছ থেকে যোগাড় করা দুধ এই এটিএমের মাধ্যমে বিলি করা হচ্ছে।

পুদুচেরির প্রখ্যাত ‘জিপমার’ হাসপাতালে কম ওজন বা অপুষ্ট যেসব শিশু জন্ম নেয়, তাদের অতি প্রয়োজনীয় মাতৃদুগ্ধ পান করানোর জন্যই এই প্রচেষ্টা শুরু করেছেন সেখানকার চিকিৎসকেরা।

‘জিপমার’- এর অধিকর্তা সুভাষ চন্দ্র পারিজা বলছেন, ‘প্রতিমাসে প্রায় ১৫০০ শিশু জন্মায় হাসপাতালে। এদের মধ্যে প্রায় ৩০% ই কম ওজন নিয়ে জন্মায়। অনেকক্ষেত্রেই মায়েদের শারীরিক সমস্যার কারণে ওই অসুস্থ নবজাতকদের মাতৃদুগ্ধ দিতে পারেন না। অথচ মাতৃদুগ্ধ ওই নবজাতকদের অত্যন্ত প্রয়োজন।’

‘জিপমার’এর এই এটিএম -এ স্বেচ্ছায় যে কোনও মা-ই বাড়তি দুগ্ধ দান করতে পারেন। তবে দাতা মায়ের এইডস, হেপাটাইটিস প্রভৃতি মারণ রোগ আছে কিনা, সেটা ভাল করে যাচাই করে নেয়া হয়। সংগৃহীত মাতৃদুগ্ধ প্যাসচুরাইজ করে রেখে দেয়া হচ্ছে।

তবে কলকাতার শিশুরোগ ও নবজাতক বিশেষজ্ঞ সুমিতা সাহা বলছিলেন, ‘মাতৃদুগ্ধ প্যাসচুরাইজ করার প্রয়োজন হয় না। পরিষ্কার বোতলে সাধারণ তাপমাত্রায় ৪ থেকে ৬ ঘণ্টা তো রাখাই যায়। তবে ফ্রিজে রাখলে সেটা ২৪ ঘণ্টা থেকে ৪ মাস পর্যন্ত সংরক্ষণ করা যায়। কী ধরণের ফ্রিজে রাখছেন, তার ওপরে নির্ভর করবে কতদিন তাজা থাকবে দুধ। কিন্তু একবার ফ্রিজ থেকে বের করে নিলে সেটা কিছুক্ষণের মধ্যেই ব্যবহার করে ফেলতে হবে।’

বিভিন্ন দেশেই কর্মরত মায়েদের জন্য মাতৃদুগ্ধ ব্যাংক রয়েছে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন