• আজ সোমবার, ৯ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ২৫ অক্টোবর, ২০২১ ৷

আমি স্বৈরাচার ছিলাম না – এরশাদ


❏ শনিবার, জুলাই ২৩, ২০১৬ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক –  গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি বলেই ক্ষমতা ছেড়ে দিয়েছিলাম। আমি স্বৈরাচার ছিলাম না। আমি অবৈধ পন্থায় ক্ষমতা গ্রহণ করেনি। দেশের প্রয়োজনে দায়িত্ব নিয়েছিলাম। তারেক রহমানকে দণ্ড দেয়ার পর বিএনপির যে প্রতিক্রিয়া দেখেছি তাতে দলটি নিঃশেষ হয়ে গেছে বলে মনে করেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। তাই জাতীয় পার্টিই হচ্ছে আগামীতে ক্ষমতায় যাবার দল। দীর্ঘকাল থেকেই জাতীয় পার্টি আওয়ামী লীগের পাশে আছে এবং থাকবে বলে জানান তবে আওয়ামী লীগের সাথে জোট করে তিনি কোনো সুবিচার পাইনি। বৃহস্পতিবার নিউ ইয়র্কের একটি পার্টি হলে যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টি আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনায় এসব কথা বলেন তিনি।

arsader
বাংলাদেশে রাজনীতিবিদদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি নির্যাতনের শিকার হয়েছেন বলে মনে করেন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি। এসময় তিনি আবেগ আপ্লুত কন্ঠে বলেন, আমি নির্বাচন দেবার জন্য বিচারপতি সাহাব উদ্দিন আহম্মদকে উপরাষ্ট্রপতি করেছিলাম। বিনিময়ে আমি শিশু সন্তানসহ কারাগারে যেতে হলো। কী নিঃসঙ্গ জীবন কারাগারে কেটেছিল একজন রাষ্ট্রপতির। তিনি আরো বলেন, গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি বলেই ক্ষমতা ছেড়ে দিয়েছিলাম। আমি স্বৈরাচার ছিলাম না। আমি অবৈধ পন্থায় ক্ষমতা গ্রহণ করেনি। দেশের প্রয়োজনে দায়িত্ব নিয়েছিলাম।
আওয়ামী লীগের সাথে জোট গঠন প্রশ্নে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের সাথে জোট করে কোনো সুবিচার পাইনি। ২০০৮ সালে নির্বাচনে জাতীয় পার্টির বিরোধী দলে যাবার সুযোগ ছিল । আওয়ামী লীগ আমাদের ১৭টি আসনে প্রার্থী দিয়ে আমাদের সেই সুযোগ থেকে বঞ্চিত করেছে। আওয়ামী লীগের কাছে কোনো সুবিচার পাইনি। সুবিচার পাই আর না পাই তার পরও আওয়ামী লীগের পাশে আছি, থাকবো। সন্ত্রাস দমনে শেখ হাসিনা সক্ষম দাবি করে এরশাদ প্রধানমন্ত্রীকে জাতীয় ঐক্যের ডাক দেবার আহ্বান জানান। দেশে আইএস ও জঙ্গীবাদ বলতে কিছু নেই বলে জানান সাবেক এই রাষ্ট্রপতি।
বিএনপির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট তারেক রহমানের সাজার প্রশ্নে তিনি বলেন, তারেকের বিরুদ্ধে আদালাতের রায় হয়েছে। প্রতিবাদ করার জন্য ১০ জন লোকও পাইনি বিএনপি। বিএনপি নিঃশেষ হয়ে যাচ্ছে। সুতরাং আগামীতে নির্বাচন হবে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পর্টির মধ্যে।
সংখ্যালঘু নির্যাতন প্রশ্নে এরশাদ বলেন, আমার সময় সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে হামলা হয়েছে একথা কেউ বলতে পারবে না। এখন নির্যাতন হচ্ছে তাদের জমি দখল হচ্ছে। জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় এলে একটি হামলার ঘটনাও ঘটবে ন।
নাগরিক সংবর্ধনায় আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টি মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায়, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান, সেক্রেটারি (ভারপ্রাপ্ত) আবদুস সামাদ আজাদ, জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু তালেব চান্দু প্রমূখ।
ব্যক্তিগত সফরে তিনি গত ১৮ জুলাই নিউ ইয়র্কে এসেছেন। আগামী ২২ জুলাই তাঁর দেশে ফিরে যাবার কথা রয়েছে।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন