সংবাদ শিরোনাম
“পরশ্রীপুলক” | মাধ্যমিকের সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রকাশ | কটিয়াদীতে নিখোঁজের পর মাটি খুঁড়ে মা-বাবা ও ছেলের লাশ উদ্ধার | ক্যান্সারে আক্রান্ত শিশু জিনিয়া বাঁচতে চায়, প্রয়োজন সহযোগিতার | সফলতার রঙিন স্বপ্ন: নওগাঁর মাটিতে থোকায় থোকায় ঝুঁলছে মিষ্টি-সুস্বাদু আঙ্গুর | আগের সব রেকর্ড ভেঙ্গে একদিনে সর্বোচ্চ করোনায় আক্রান্ত যুক্তরাষ্ট্রে! | মহানবীকে নিয়ে ব্যঙ্গ কার্টুন প্রদর্শনের প্রতিবাদে ফরিদপুরে বিক্ষোভ মিছিল | স্বাধীনতা পুরস্কারে ভূষিত হলেন নারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ভারতেশ্বরী হোমস | ইসলাম অবমাননাকর কার্টুন প্রকাশের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে রাশিয়া | সেনেগালে নৌকাডুবে ১৪০ অভিবাসী প্রত্যাশীর মৃত্যু |
  • আজ ১৪ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

দাঁতের ব্যথা ঘটাতে পারে জীবনহানি

২:৪৮ অপরাহ্ন | শনিবার, জুলাই ২৩, ২০১৬ আপনার স্বাস্থ্য

teeth-pain


স্বাস্থ্য ডেস্কঃ

কথায় বলে না, দাঁত থাকতে দাঁতের মর্ম বুঝতে হয়। সামান্য দাঁতে ব্যথা থেকে যে এত বড় কাণ্ড বেধে যেতে পারে, কে-ই বা জানত। সেটা বোঝেননি বোলেই আজ আইসিইউ-তে পেশায় জিম ট্রেনার মালা এমং!

এমন যে হতে পারে দুঃস্বপ্নেও ভাবেননি! ২৬ বছর বয়সী এই তরুণী এখন না পারছেন কিছু দাঁতে কাটতে, না কথা বলতে। এমনকী তরল জাতীয় কিছু যে খাবেন, সে উপায়টুকুও নেই। আইসিইউ-এর বেডে শুয়ে নিজের কৃতকর্মের জন্য পস্তানো ছাড়া আর কী-ই বা করতে পারেন!

দাঁতের ব্যথা থেকে একসঙ্গে মাল্টি অরগ্যান কাজ করা বন্ধ করে দেয়। পরপর তিনটে ছোট কার্ডিয়াক অ্যাটাক। যার জেরে দু-মাস মরণাপন্ন অবস্থায় কাটাতে ভেন্টিলেটরে। এখন কিছুটা সুস্থ হয়ে উঠলেও, আইসিইউ-এর বাইরে বেরোতে পারেননি।

এই ঘটনার কিছু দিন আগে থেকে ডান দিকের চোয়ালে ব্যথা শুরু হয়েছিল মালার। তোয়াক্কা না করে পেইনকিলার খেয়ে ব্যথা হজম করছিলেন। ভেবেছিলেন তাতে কাজ হবে। কোথায় কী! উলটে ব্যথা আরও চাড়িয়ে যায়। দাঁতের গোড়া বেয়ে গলায় পৌঁছে যায়। গলা ফুলে ঢোল। শ্বাস নেওয়ার পথ বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়। এমন অবস্থায় কেউ কী আর খেতে পারে! এই তরুণীও পারেনি। খাওয়া বন্ধ, কথা বন্ধ তবে থেকেই।

মেয়ের এমন অবস্থা দেখে মা-ই জের করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করেন। কিন্তু, সেখানে এমন জটিল রোগের চিকিত্সার মতো যন্ত্রপাতি কিছুই নেই। তাই রেফার করা হয় ফর্টিস হাসপাতালে। ডাক্তাররা পরীক্ষা করে দেখেন গুরুত্বপূর্ণ অরগ্যানগুলোয় দাঁত থেকে সংক্রমণ ছড়িয়ে গিয়েছে। ডাক্তাররা জানান, মাল্টিপল অরগ্যান ডিসফাংশান সিনড্রোমে আক্রান্ত হয়েছেন এই তরুণী।

স্বভাবতাই সংক্রমণ থেকে ধুম জ্বর। নেমে যায় ব্লাড প্রেসার। দ্রুত ইমার্জেন্সিতে নিয়ে যেতে হয় তরুণীকে। বলছিলেন ফর্টিসের ইন্টারন্যাল মেডিসিন বিভাগের ডাক্তার সুধা মেনন। তার অধীনেই চিকিত্সাধীন রয়েছেন এই জিম ট্রেনার। তারা ধরেই নিয়েছিলেন ডেঙ্গু নয়তো H1N1। কিন্তু, রিপোর্টে তেমন কিছু পাননি। পরে বুঝতে পারেন তরুণীর দাঁত থেকে সংক্রমণ ছড়িয়ে নিউমোনিয়া হয়েছে। তার ফুসফুসে এখনও ব্যাক্টেরিয়া রয়েছে। হার্ট, মাথা ও ঘাড়ের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত শিরাতেও ক্লট ধরা পড়ে। মুখের সংক্রমণ থেকে ছড়ানো ব্যাক্টেরিয়াই এমন অবস্থার কারণ বলে দাবি করেন সুধা মেনন।

ফলে সাবধান! দাঁতের ব্যথা হলে নিজে ডাক্তারি না-করে ডেন্টিস্টের কাছে যান। অবহেলা করবেন না।.