• আজ বৃহস্পতিবার, ১২ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ২৮ অক্টোবর, ২০২১ ৷

কাবুলে আইএসের আত্মঘাতী বোমার বিস্ফোরনে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮০


❏ রবিবার, জুলাই ২৪, ২০১৬ আন্তর্জাতিক

 আন্তর্জাতিক ডেস্ক –  আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে আত্মঘাতী বোমার বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮০ জনে দাঁড়িয়েছে। এর আগের খবরে নিহতের সংখ্যা ৬১ বলে উল্লেখ করা হয়েছিল। হামলায় আহত হয়েছেন অন্তত ২৩০ জন। জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) এ হামলার দায় স্বীকার করেছে। রবিবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে শনিবার এক বিক্ষোভ সমাবেশে শক্তিশালী এই বোমা বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। আফগান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মোহাম্মদ ইসমাইল কাউসি ওই বিস্ফোরণে হতাহতের এ তথ্য জানিয়েছেন। তবে এটা হাসপাতাল থেকে পাওয়া প্রাথমিক পরিসংখ্যান। এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। আহত ব্যক্তিদের মূলত ঘটনাস্থলের কাছাকাছি ইস্তিকলাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

kabul-boma

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, শনিবার কাবুলের ডেমাজাং সার্কেলের কাছে এ ঘটনা ঘটে। সেখানে একটি বিদ্যুৎ সংযোগের গতিপথ পরির্বতনের জন্য দেশটির শিয়া হাজারা সম্প্রদায়ের হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ প্রদর্শন করছিলেন। এ সময় একজন আত্মঘাতী ওই বিক্ষোভকারীদের মধ্যে বিস্ফোরণ ঘটায়।

আফগানিস্তানের শিয়া হাজারা সম্প্রদায় দীর্ঘদিন ধরে অবহেলিত। বামিয়ান এলাকায় তাদের আবাস। ভয়াবহ পিছিয়ে থাকা এই এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ নেই। সঙ্গে রয়েছে তালেবানের দৌরাত্ম্য। সেখানকার শিয়া সম্প্রদায়ের দাবি, ব্যয়বহুল একটি বিদ্যুৎ প্রকল্পের পাওয়ার লাইন তাদের এলাকা দিয়ে পাঠাতে হবে। যেন তারা বিদ্যুতের মুখ দেখার সুযোগ পান। তবে ওই বিদ্যুৎ লাইন বামিয়ান হয়ে যাওয়ার কথা থাকলেও আফগানিস্তান সরকার তা বামিয়ানের বদলে উত্তর কাবুলের পাহাড়ি সালাং-এর পাশ দিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। সরকারের যুক্তি, এর ফলে রাস্তা কম হওয়ায় প্রকল্পের কাজ যেমন দ্রুত হবে,তেমনি বাঁচবে কয়েক মিলিয়ন ডলার। কিন্তু হাজারারা তা মানতে রাজি হননি। বিদ্যুতের দাবিতে শনিবার কাবুলে এসে তারা বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। আর সেই মিছিলেই ঘটে এই ভয়াবহ বিস্ফোরণ।

বিস্ফোরণের পরপর ঘটনাস্থলের দৃশ্য ছিল ভয়াবহ। ঘটনাস্থলে দগ্ধ ব্যক্তি এবং ছিন্নভিন্ন অঙ্গপ্রত্যঙ্গ পড়ে থাকতে দেখা গেছে। বিস্ফোরণের ঘটনায় বিক্ষোভকারীরা বিক্ষোভ করছিল। এতে ঘটনাস্থলে অ্যাম্বুলেন্স পৌঁছানো দুরূহ হয়ে পড়ে।

আইএসের কথিত বার্তা সংস্থা আমাক জানিয়েছে, ‘কাবুলে আইএসের যোদ্ধারা বেল্টে রাখা বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে।’

আফগান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে তিনজন আত্মঘাতী হামলাকারী এই হামলা চালিয়েছে।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, কাবুলে বিক্ষোভকারীদের শান্তিপূর্ণ সমাবেশের ওপর ভয়ংকর এ হামলা চরম অসম্মানের। এ ধরনের আক্রমণ আবারও মনে করিয়ে দিল যে আফগানিস্তানের বিপদ-শঙ্কা এখনো কাটেনি এবং মানবাধিকার পরিস্থিতি সংকটপূর্ণ।

এক বিবৃতিতে আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, ‘শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ প্রতিটি নাগরিকের অধিকার। কিন্তু সুবিধাবাদী সন্ত্রাসীরা জনতার মধ্যে ঢুকে হামলা চালিয়ে তাদের হত্যা করেছে এবং নিরাপত্তা বাহিনীসহ বেশ কিছু নাগরিককে আহত করেছে।’

সূত্র: বিবিসি, রয়টার্স, আল জাজিরা।